kalerkantho


মৈত্রী উদ্যান উদ্বোধন আজ

ত্রিপুরায় বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ‘ছবি’

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি   

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের দক্ষিণ জেলা বিলোনিয়ার চোত্তাখলা। মুক্তিযুদ্ধকালে সেখানে ছিল ট্রেনিং ক্যাম্প। শত শত বাঙালি শরণার্থী সেখানে আশ্রয় নেয়। রয়েছে আরো নানা স্মৃতি। এসব স্মৃতি ধরে রাখতে চোত্তাখোলায় যেন আঁকা হয়েছে বাংলাদেশের ছবি।

ত্রিপুরার ‘দৈনিক দেশের কথা’র খবরে বলা হয়, প্রায় চার একর জমিতে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন ঘটনা, শরণার্থীবিষয়ক ম্যুরালের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। রয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর ভাস্কর্য। স্থানটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী উদ্যান’। আজ শনিবার থেকে উদ্যানটি দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে। দুপুরে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার উদ্যান উদ্বোধনের পর খুলে দেওয়া হবে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আলোচনা ও দুই দেশের শিল্পীদের নিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হওয়ার কথা রয়েছে। উদ্যানটি চালুর মধ্য দিয়ে দুই দেশের সম্পর্ক আরো দৃঢ় হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

উদ্যানের মূল প্রবেশপথ হয়ে ঢুকতেই চোখে পড়বে বাংলাদেশ-ভারতের পতাকা, দুই দেশের জাতীয় সংগীতের চরণ। রয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ঘোষণার কথা, ৪৪ ফুট উঁচু শহীদ মিনার, চোত্তাখোলার মুক্তিযুদ্ধের ট্রেনিং সেন্টার, বাংকার, মুক্তিযোদ্ধাদের কবর। বড় বড় জলাশয় ও ঝুলন্ত সেতু উদ্যানটিকে আকর্ষণীয় করে তুলেছে। পর্যটকরা জলাশয়ে নৌকায় ঘুরতে পারবে।

উদ্বোধনের পর প্রথম দুই দিন দর্শনার্থীরা বিনা মূল্যে উদ্যানে ঢুকতে পারবে। ত্রিপুরার সরকারি চারু ও কারুকলা মহাবিদ্যালয় এবং বাংলাদেশের শিল্পীদের সহায়তায় উদ্যানটি গড়ে তোলা হয়েছে।



মন্তব্য