kalerkantho


টঙ্গীতে জোড়া খুন

বন্ধু আটক, মামলা

টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিনিধি   

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



টঙ্গীর দত্তপাড়ায় প্রবাসী দুই চাচাতো ভাইকে হত্যার ঘটনায় একটি মামলা করা হয়েছে। গতকাল বুধবার টঙ্গী থানায় মামলাটি করেন নিহত আক্তার হোসেনের বাবা মজিবুর রহমান। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আক্তারের বন্ধু সোলাইমান খানকে (৩১) আটক করেছে পুলিশ।

নিহতদের পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠ সদস্য স্থানীয় মাতব্বর ওসমান গনি জানান, এক বছর আগে আক্তার হোসেন দুবাই থেকে এসে সম্প্রতি টঙ্গীর একটি কারখানায় চাকরি নেন। আরেক নিহত আসিবুর রহমান মিম ইটালির বার্সেলোনা থেকে ছয় মাস আগে মায়ের অসুস্থতার খবর শুনে দেশে আসেন। মায়ের মৃত্যুর পর তিনি আর ফিরে যাননি।

আক্তারের খালা সাহেরা বানু জানান, মঙ্গলবার মাগরিবের নামাজের পর আক্তার বাজার নিয়ে বাড়ি আসেন। তখন আক্তারের মোবাইল ফোনে কয়েকবার রিং বেজে উঠলে তিনি দ্রুত ঘর থেকে বের হয়ে যান। তিনি কোথায় যাচ্ছেন, জানতে চাইলে জানান, বন্ধুরা তাঁকে ডাকছে।

আক্তারের মা আয়েত বানু বলেন, ‘মোবাইল ফোনের মাধ্যমেই জানা যাবে কারা তাঁকে (আক্তার) ডেকে নিয়েছিল।’ তিনি জানান, আক্তার প্রাণ বাঁচাতে দৌড়ে বাড়ির দরজার সামনে এসে আছড়ে পড়েন। তখন তাঁকে হাসপাতালে নেওয়ার জন্য অনেক অনুনয়-বিনয় করেও কোনো পুরুষকে পাওয়া যায়নি। ঘটনাস্থলের এক দোকানি বলেন, ‘ওই দিন পাঁচ-ছয়জন যুবক যাদের কুপিয়ে হত্যা করে তাদের সঙ্গে নাম ধরে তর্কাতর্কি করছিল এবং জখম অবস্থায় পালিয়ে যাওয়ার সময় তাদের ধরতে নাম ধরে ধাওয়া করছিল।’

আক্তারের স্ত্রী লিমা আক্তার ২২ দিন আগে তাঁর জন্ম নেওয়া ছেলে আদিয়াতকে বুকে নিয়ে আর্তনাদ করে বলেন, ‘আমি আমার এতিম সন্তানকে নিয়ে কিভাবে বেঁচে থাকব!’ তিনি হত্যাকারীদের বিচার দাবি করেন।

এলাকার কিছু লোক জানায়, স্বজনদের মধ্যে জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। এরই জেরে হত্যাকাণ্ড দুটি হতে পারে বলে এলাকাবাসীর ধারণা। পুলিশ বলছে, এলাকার মাদক কারবারের আধিপত্য নিয়ে প্রতিপক্ষ আক্তারের ওপর হামলা চালায়। তাঁকে বাঁচাতে গিয়ে চাচাতো ভাই আসিবুর হামলায় মারা যান।

আক্তারের বাবা মজিবুর রহমান ও আসিবুরের বাবা হাবিবুর রহমান এসব বিষয় অস্বীকার করে বলেন, কয়েক দিন আগে তাঁদের বাড়ির সামনে ব্যাডমিন্টন খেলার সময় স্থানীয় কয়েকজন যুবকের সঙ্গে আক্তারের কথা-কাটাকাটি হয়। এর জেরে এ হত্যাকাণ্ড হতে পারে।

টঙ্গী থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার বলেন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সোলাইমানকে আটক করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।


মন্তব্য