kalerkantho


অযত্নে কালিয়াকৈরের ‘নির্যাতন ৭১’

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি   

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



গাজীপুরের কালিয়াকৈরে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের পাশে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত ভাস্কর্য নির্যাতন-৭১। বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় এমন ভাস্কর্য স্থাপন করা হয়েছে। যুদ্ধকালীন স্মৃতি ধরে রাখতেই এসব ভাস্কর্যের আবিষ্কার। কিন্তু কালিয়াকৈর পৌরসভার গোয়ালবাথান এলাকায় অবস্থিত ভাস্কর্য নির্যাতন-৭১ ও তার উদ্ধোধনী ফলকটি অযত্নে-অবহেলায় ধুলায় ধূসরিত হয়ে আছে।

জানা যায়, মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে ২৯ লাখ টাকা ব্যয়ে ২০১৬ সালে উপজেলা প্রকৌশলী দপ্তর নির্যাতন-৭১ নির্মাণ করে। এর ভাস্কর আশরাফ। মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক ২০১৬ সালের ১৬ ডিসেম্বর এই ফলক উদ্ধোধন করেন। বর্তমানে উপজেলা প্রশাসন ও মুক্তিযুদ্ধ সংসদ ভাস্কর্যটির দায়িত্বে রয়েছে, যদিও এর সৌন্দর্যবর্ধনে কোনো কাজই হচ্ছে না। ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা থেকে উত্তরবঙ্গে ও উপজেলা কার্যালয়ে যাওয়ার সময় রেলওভার ব্রিজের পূর্বপাশে নির্যাতন-৭১-এর অবস্থান। এর পাশে যমুনা সেতু অ্যাকসেস রোডস প্রজেক্ট কালিয়াকৈর বাইপাস উদ্বোধনের একটি ফলক রয়েছে। ফলকের আশপাশে ময়লা-আর্বজনা আর জঙ্গলে ভরে গেছে।

কালিয়াকৈর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ডা. মো. সাহাবুদ্দিন আহসান বলেন, ‘নির্যাতন-৭১ আমাদের আগামী প্রজন্মের জন্য একটি ইতিহাস। স্মৃতি ফলকটি আমাদের যুদ্ধের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়।’ ইউএনও মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘নির্যাতন-৭১-কে মূল্যায়ন করে এবার বিজয় দিবসের দাওয়াতপত্রে ওই ছবি দেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে অযত্ন কিছু হলেও তার যত্ন নেওয়া হবে। আগামীকালের মধ্যেই নির্যাতন-৭১-এর আশপাশে সব আবর্জনা পরিষ্কার করা হবে।’



মন্তব্য