kalerkantho


রংপুরে হিন্দুপাড়ায় তাণ্ডব

এবার দুই ইউপি সদস্য গ্রেপ্তার

রংপুর অফিস   

১৮ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



ফেসবুকের একটি স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে রংপুরের ঠাকুরপাড়ায় হিন্দু সম্প্রদায়ের কয়েকটি বাড়িঘরে ভাঙচুর, লুটপাট ও আগুন দেওয়ার ঘটনায় সদর উপজেলার মমিনপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) দুই সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাঁরা হলেন ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য জয়নাল আবেদীন এবং ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ফজলুল হক।

পুলিশ জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাতে ওই ইউনিয়নের কুরশা বলরামপুর গ্রাম থেকে জয়নালকে এবং মহেশপুর গ্রাম থেকে ফজলুলকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ নিয়ে গত সাত দিনে ওই ঘটনায় দায়ের করা দুটি মামলায় ১৬১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তবে ঠাকুরপাড়ায় তাণ্ডবের ঘটনায় এখন পর্যন্ত মূল সন্দেহভাজন ওলামা দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও রংপুর জেলার সভাপতি ইনামুল হক মাজেদী, খলেয়া ইউনিয়ন বিএনপি নেতা মাসুদ রানা, রংপুর জেলা পরিষদের প্রকৌশলী ফজলার রহমানসহ ইন্ধন ও অর্থের জোগানদাতাদের উল্লেখযোগ্য কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি শরিফুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, গ্রেপ্তারকৃত ওই দুই ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে তাণ্ডবের ঘটনায় জড়িত থাকার কিছু তথ্য-প্রমাণ পাওয়া গেছে। তাণ্ডবের ঘটনায় গঙ্গাচড়া ও কোতোয়ালি থানায় পুলিশ বাদী হয়ে পৃথক দুটি মামলা করেছে। একটি ঠাকুরপাড়ায় হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলা, অগ্নিসংযোগ ও মালামাল লুটের ঘটনায়; অন্যটি পুলিশের ওপর হামলা ও সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার ঘটনায়।

পুলিশ জানায়, ফেসবুক স্ট্যাটাসে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে গত ৬ নভেম্বর সদর উপজেলার খলেয়া ইউনিয়নের হরকলি ঠাকুরপাড়া গ্রামের মৃত খগেন রায়ের ছেলে টিটু রায়ের বিরুদ্ধে গঙ্গাচড়া থানায় তথ্য ও প্রযুক্তি আইনে একটি মামলা করেন একই ইউনিয়নের সলেয়াশা গ্রামের রাজু মিয়া। এরপর ১০ নভেম্বর শুক্রবার জুমার নামাজের পর টিটু রায়ের ফাঁসির দাবিতে সলেয়াশা বাজারে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করে স্থানীয়রা। পরে কয়েক হাজার মানুষ ঠাকুরপাড়া গ্রামে টিটু রায়ের বাড়িসহ হিন্দু সম্প্রদায়ের কয়েকটি বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাট করে।

এ নিয়ে হামলাকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। এতে এক যুবক নিহত হয়, আহত হয় পুলিশসহ অন্তত ২৫ জন।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি জানান, তথ্য ও প্রযুক্তি আইনের মামলায় গত মঙ্গলবার ভোরে টিটুকে নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার চিড়াভিজা গোলনা এলাকায় তাঁর এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরদিন মামলাটি রংপুর ডিবি পুলিশের (উত্তর) কাছে স্থানান্তর করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বুধবার তাঁকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন জানানো হলে আদালত চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।


মন্তব্য