kalerkantho


শিক্ষিকাকে উত্ত্যক্ত, শিক্ষককে হুমকি

কালিয়াকৈরে অভিভাবক প্রতিনিধির বিচার দাবি

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি   

১০ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০



কালিয়াকৈরে অভিভাবক প্রতিনিধির বিচার দাবি

গাজীপুরের কালিয়াকৈরের ভাউমান টালাবহ মডেল হাই স্কুলের শিক্ষিকাদের উত্ত্যক্ত এবং প্রধান শিক্ষককে প্রাণনাশের হুমকির প্রতিবাদে গতকাল মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করে ওই স্কুলের শিক্ষার্থীরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে শিক্ষিকাকে উত্ত্যক্ত করার পাশাপাশি প্রধান শিক্ষককে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়ার ঘটনায় বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের এক সদস্যের বিচার দাবি করা হয়েছে। এর আগে এ ব্যাপারে বিভিন্ন জায়গায় ধরনা দিয়েও বিচার না পেয়ে গতকাল সোমবার দুপুরে ওই বিদ্যালয়ের মাঠে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচিতে ওই দাবি জানানো হয়।

এ ছাড়া ঘটনার প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে স্মারকলিপিও দেওয়া হয়।

জানা যায়, উপজেলার ভাউমান টালাবহ মডেল হাই স্কুলে ১২ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ৪৭৫ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। বিদ্যালয়টি পরিচালনায় ২০১৬-১৮ সালের জন্য ১১ সদস্যের ম্যানেজিং কমিটি গঠন করা হয়। ওই কমিটির অভিভাবক সদস্যদের একজন মো. ছানোয়ার হোসেন বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষিকাকে আসা-যাওয়ার পথে শ্লীলতাহানির পাশাপাশি ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করেন। এ ঘটনায় ওই বিদ্যালয়ের এক শিক্ষিকা বাদী হয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। তাঁর বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের অর্থ আত্মসাতেরও অভিযোগ রয়েছে। এসব কাজে বাধা দিলে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হারেজ আলীকেও হুমকি দেওয়া হয়।

এদিকে এসব বিষয়ে কোনো প্রতিকার না পেয়ে গত ২৯ জানুয়ারি প্রধান শিক্ষক হারেজ উদ্দিন বাদী হয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ জানান। কিন্তু উপজেলা প্রশাসনও এ ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় গতকাল দুপুরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

এ সময় অভিযুক্ত সানোয়ার হোসেনকে ম্যানেজিং কমিটির সদস্য থেকে অব্যাহতি প্রদানের পাশাপাশি তাঁর বিচার দাবি করা হয়।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হারেজ আলী বলেন, ‘তাঁর অন্যায় কাজে বাধা দেওয়ায় আমাকেও প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছেন। ’

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য মো. সানোয়ার হোসেন বলেন, ‘এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণে টাকা বেশি নিলে আমি বাধা দিই। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তারা আমার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ তুলছে। তা ছাড়া আমার বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের শিক্ষিকাদের উত্ত্যক্ত করার যে অভিযোগ আনা হয়েছে তাও মিথ্যা। ’

বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মনির বলেন, ‘এ ঘটনায় স্থানীয়ভাবে একাধিকবার গ্রাম্য সালিসের আয়োজন করা হলেও অভিযুক্ত সদস্য হাজির হননি। তিনি আমাদের কারো কথাই না শুনে অপকর্ম করেই যাচ্ছেন। ’

কালিয়াকৈরের ইউএনও মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘বিষয়টি খতিয়ে দেখে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’


মন্তব্য