kalerkantho


গাংনীতে ইমাম ও তরুণীকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

পাঁচ মাতবরের বিরুদ্ধে মামলা

মেহেরপুর প্রতিনিধি   

১৮ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০



মেহেরপুরের গাংনীর মথুরাপুর গ্রামে মসজিদের ইমাম ও তরুণীকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় আদালতে পাঁচ মাতবরের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। গত রবিবার মেহেরপুরের আমলি আদালত ও দ্রুত বিচার আদালতে মামলাটি করেন ইমাম নাজমুল হোসেনের বাবা দেলোয়ার হোসেন।

আসামিরা হলেন মথুরাপুর গ্রামের ইমান আলী শেখের ছেলে মোকাদ্দেস হোসেন, মোমিনুল ইসলাম, আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে বাদল হোসেন, লাল চাঁদের ছেলে রিপন আলী ও ওয়াজেল হোসেনের ছেলে কালু হোসেন। আসামিরা সবাই আওয়ামী লীগের কর্মী। মামলায় বাদীপক্ষের আইনজীবী কামরুল হাসান বলেন, আদালতে এজাহারের সঙ্গে পেপার কাটিং ও নির্যাতনের ছবি দিয়ে আবেদন করা হয়। বিচারক মো. ছানাউল্ল্যাহ মামলাটি আমলে নিয়ে গাংনী থানাকে ফার্স্ট ইনফরমেশন রিপোর্ট দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। মামলার এজাহারে জানা যায়, ১ জুলাই ওই তরুণীর খালা একটি সুরা বিষয়ে জানার জন্য মোবাইল ফোনে মথুরাপুর গ্রামে তাঁর বাড়িতে ডেকে নেন ইমাম নাজমুল হোসেনকে। নাজমুলের সঙ্গে তরুণীটির অনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে এমন অভিযোগ তুলে বাড়ি থেকে নাজমুলকে ধরে নিয়ে যায় স্থানীয় মাতবর মুকাদ্দেস আলী, মোমিনুল, রিপন আলী, বাদল হোসেন, কালু ও তাঁদের সহযোগীরা।


মন্তব্য