kalerkantho


বালিয়াকান্দিতে নববধূর লাশ

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



দেড় মাস আগে বিয়ে হয় রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি ডিগ্রি কলেজের ছাত্রী মিতা খাতুনের (২০)। হাতে এখনো আছে বিয়ের মেহেদির রং।

গতকাল রবিবার দুপুরে তাঁর লাশ শ্বশুরবাড়ি থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মিতা বালিয়াকান্দি ইউনিয়নের পাইককান্দি গ্রামের সাহিদা বেগম-শামসুল শেখ দম্পতির মেয়ে। সাহিদা বেগম জানান, মিতা ডিগ্রি শেষ বর্ষের ছাত্রী। পড়াশোনা করা অবস্থায় দেড় মাস আগে একই ইউনিয়নের শালকী গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক ফকিরের কৃষক ছেলে মোস্তাক ফকিরের সঙ্গে মিতার বিয়ে হয়। গতকাল ভোরে মিতা তাঁকে ফোন করে বলে, ‘মা, আমাকে ক্ষমা করে দিও। আমি যদি কোনো অন্যায় করে থাকি তুমি আমাকে মাফ করে দিও। ’ এ কথা শোনার পর উতলা হয়ে ওঠেন সাহিদা বেগম। তিনি বলেন, ‘পরিবারের কাউকে কিছু বলার আগেই মিতার শ্বশুরবাড়ি থেকে ফোন আসে সে গুরুতর অসুস্থ। দ্রুত ওই বাড়িতে গিয়ে জানতে পারি, তার লাশ নাকি গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলে ছিল।

’ সাহিদা বলেন, তাঁর মেয়ের আত্মহত্যা করার কথা নয়। এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। মেয়েকে তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকজন পারিবারিক কলহের জের ধরে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখে।

স্থানীয় পল্লী চিকিৎসক দাউদ হোসেন জানান, গতকাল সকাল ৭টার দিকে তিনি খবর পেয়ে ওই বাড়িতে যান এবং মিতাকে পরীক্ষা করে দেখেন, তাঁর মৃত্যু হয়েছে।


মন্তব্য