kalerkantho


এবার বুনো হাতির লাশ শ্রীবরদীতে

শেরপুর প্রতিনিধি   

৩ নভেম্বর, ২০১৫ ০০:০০



এবার বুনো হাতির লাশ শ্রীবরদীতে

শেরপুরের শ্রীবরদী সীমান্তে এবার মিলেছে বুনো হাতির গুলিবিদ্ধ লাশ। গতকাল সোমবার সকালে হাতিটির সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি ও ময়নাতদন্ত শেষে কর্ণঝোড়া সীমান্তের আগুপাড়া এলাকায় মাটিচাপা দেওয়া হয়েছে।

শেরপুর বন বিভাগের কর্ণজোড়া বিট কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম জানান, হাতিটির ডান পায়ের ওপরের দিকে গুলিবিদ্ধ হওয়ার দুটি ক্ষত রয়েছে। এটি একটি বাচ্চা হাতি। বুনো হাতিটি সীমান্তের ওপারে আক্রান্ত হয়ে রবিবার বিকেলে এপারে আগুপাড়া এলাকায় মরে পড়ে ছিল। পাহাড়ে গরু চরানো রাখালদের কাছ থেকে খবর পেয়ে হাতিটির লাশ উদ্ধার করা হয়। গতকাল সকালে হাতিটির ময়নাতদন্ত করেন শ্রীবরদী উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ভেটেরিনারি সার্জন ডা. মো. আব্দুর রউফ।

হাতি সুরক্ষায় কাজ করা আইইউসিএনের সাইট ম্যানেজার মিজানুর রহমান জানান, এটি বাচ্চা হাতি। বয়স আনুমানিক এক থেকে দেড় বছর হবে। শুঁড় থেকে লেজ পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৯ ফুট লম্বা হাতিটি মর্দা (পুরুষ)। উচ্চতা সাড়ে চার ফুট।

কর্ণজোড়া বিট অফিস থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরে পাহাড়ের অভ্যন্তরে ভারত সীমান্তের ১০৯৬ নম্বর সীমানা পিলার থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার ভেতরের একটি গর্তে হাতির লাশটি পাওয়া যায়।

এলাকাবাসী জানায়, সীমান্তের ওপারে ভারতের মেঘালয় রাজ্যের পোকাসন্ধি এলাকায় গত শুক্রবার দলছুট হয়ে পড়া বাচ্চা হাতিটিকে ধরার জন্য স্থানীয় অধিবাসীরা চেষ্টা চালায়। ওই সময় ওপারে অনেক হৈ-হুল্লোড় ও কয়েকটি গুলির শব্দ শোনা যায়। একপর্যায়ে তাড়া খেয়ে দলছুট হাতিটি গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এপারের বনে ঢুকে বান্দাজোড়া গ্রামের আগুপাড়া এলাকার পাহাড়ে অবস্থায় নেয়। রবিবার বিকেলে পাহাড়ে গরু চরানো অবস্থায় কয়েকজন রাখাল হাতিটিকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় দেখতে পায়। এ সময় হাতিটি খুব বেশি নড়াচড়া করতে পারছিল না। একপর্যায়ে তারা কাছে গিয়ে হাতিটিকে কলাগাছ এবং নানা খাবার দিতে চেষ্টা করে। পরে তারা বন বিভাগকে খবর দেয়। কিন্তু সন্ধ্যায় বুনো হাতিটি পাশের একটি গর্তে পড়ে মারা যায়। খবর পেয়ে বন বিভাগের বিট কর্মকর্তা, আইইউসিএনের কর্মকর্তাসহ লোকজন ঘটনাস্থলে যায়। কিন্তু রাত হয়ে যাওয়ায় এবং কাছাকাছি অন্য একটি পাহাড়ে বুনো হাতির উপস্থিতি থাকায় নিরাপত্তার কারণে তারা ফিরে আসে।

উল্লেখ্য, ঝিনাইগাতীর হালচাটি সীমান্তে গত ২৫ আগস্ট পেটে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় সাত-আট বছর বয়সী একটি বুনো হাতির লাশ উদ্ধার করা হয়। সেটিও সীমান্তের ওপার থেকে গুলিবিদ্ধ হয়ে এপারে এসে মারা গিয়েছিল।

 


মন্তব্য