kalerkantho


করিমগঞ্জে ১৫ মাস

ধরে নিখোঁজ ছেলে মামলা তুলে নিতে মাকে মারধর

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি   

১ জুলাই, ২০১৫ ০০:০০



কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলায় প্রায় ১৫ মাস আগে এক দরিদ্র মৎস্যজীবীর ছেলে ফেরদৌস (১৭) বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। এ ঘটনায় তার মা লুৎফুন্নাহার বাদী হয়ে কিশোরগঞ্জ আদালতে সন্দেহভাজনদের আসামি করে মামলা করেছিলেন।

তবে আজও ফেরদৌসের কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। পুলিশও উদ্ধার করতে পারেনি তাকে।

আদালতের নির্দেশে থানায় মামলা রেকর্ড হওয়ার পর থেকে আসামিরা নানাভাবে বাদীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছিল। বাদী মামলা তুলে না নেওয়ায় আসামিরা তাঁকে প্রকাশ্যে পিটিয়েছে।

থানা সূত্রে জানা গেছে, করিমগঞ্জের কুকিমাদল গ্রামের শহিদ মিয়ার একটি মোবাইল ফোন হারানোকে কেন্দ্র করে গত বছর ৫ এপ্রিল সন্ধ্যায় প্রতিবেশী মৎস্যজীবী মফিজ উদ্দিনের ছেলে ফেরদৌসকে ডেকে নেওয়া হয়। এর পর থেকে ফেরদৌস নিখোঁজ রয়েছে। সে স্থানীয় মাদ্রাসায় পড়ত।

পরে তার মা কিশোরগঞ্জ আদালতে সহিদ মিয়া, আব্দুর রশিদ, মুশিদ মিয়া, রুবেল মিয়া ও চুন্নু মিয়াকে আসামি করে একটি অপহরণ মামলা করেন। আদালত করিমগঞ্জ থানার ওসিকে মামলাটির তদন্ত প্রতিবেদন পেশ করার নির্দেশ দেন।

গত বছর ১০ নভেম্বর মামলাটি থানায় রেকর্ড করা হয়। এর পর থেকে আসামিরা বাদীকে মামলা তুলে নিতে হুমকি দিয়ে আসছিল।

পুলিশ জানায়, গত ১৯ জুন সকালে আসামিরা বাদীর ওপর তাঁর বাড়ির সামনে হামলা করে। আহত নারীর স্বামী মফিজ উদ্দিন বাদী হয়ে এ ব্যাপারে করিমগঞ্জ থানায় অপহরণ মামলার আসামি আব্দুর রশিদকে প্রধান আসামি করে চারজনের নামে মামলা করেন। পুলিশ আব্দুর রশিদকে গত সোমবার গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠিয়েছে।

করিমগঞ্জ থানার ওসি বজলুর রহমান বলেন, 'অপহরণ মামলার তদন্তের স্বার্থে আসামি আব্দুর রশিদকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে আনার জন্য আবেদন করা হয়েছে। '

 


মন্তব্য