kalerkantho


এসিড রিফ্লাক্স নাকি হার্টবার্ন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ জুলাই, ২০১৮ ০৮:২৩



এসিড রিফ্লাক্স নাকি হার্টবার্ন

ছবি প্রতীকী

বুকে ও পেটে সাধারণ ব্যথা অনুভূত হলে দুটো জিনিস বিবেচনায় আনা হয়। এসিড রিফ্লাক্স কিংবা হার্টবার্ন শব্দ দুটিই বেশি শুনবেন চিকিৎসকদের কাছে। রোগীরা অনেক সময়ই দুটি বিষয়কে এক করে ফেলে। আর সেখানেই ঘটে বিপদ। এগুলো আলাদা সমস্যা এবং চিকিৎসাও ভিন্ন। তাই পার্থক্যটা বুঝে নেওয়া দরকার।

এসিড রিফ্লাক্স

এটি হজমঘটিত রোগ। এসিড রিফ্লাক্স ঘটলে পাকস্থলীর এসিড খাদ্যবাহী নালিতে যন্ত্রণার উদ্রেক করে। আমরা যখন কিছু খাই, তখন খাবার ও পাকস্থলীর এ এসিড নিচের দিকেই যেতে থাকে। কিন্তু যখন এসিড বিপরীতমুখী হয়, অর্থাৎ উল্টো দিকে বা ওপরের দিকে উঠতে থাকে, তখনই এসিড রিফ্লাক্সের ঘটনা ঘটে।

এসিড রিফ্লাক্স নাকি হার্টবার্ন

পাকস্থলীর অস্বাভাবিক আচরণের পরিণতি এটি। এটি হিয়াটাল হার্নিয়া নামেও পরিচিত। বেশ কিছু কারণে এসিড রিফ্লাক্স ঘটতে পারে—

১. বিশেষ কিছু খাবার খেলে। যেমন—সাইট্রাস-জাতীয় ফল, মসলাদার ও ফ্যাটপূর্ণ খাবার খেলে;

২. গর্ভাবস্থায়;

৩. ধূমপানে;

৪. অ্যালকোহল, অতিরিক্ত পরিমাণে চা ও কফি পানে;

৫. ঘুমাতে যাওয়ার আগ দিয়ে খাদ্যগ্রহণে;

৬. অতিরিক্ত খেলে এবং খাওয়ার পরপরই শুয়ে পড়লে।

হার্টবার্ন

বুকের মাঝ বরাবর ঠিক ডানে জ্বালাপোড়া অনুভূত হয়। পাঁজরের নিচের দিকে প্রদাহজনিত এই সমস্যাকে হার্টবার্ন বলা হয়। এই প্রদাহ আসলে অন্ননালিতে ঘটে। অর্থাৎ ঘটে এসোফাগাসে। এটা এক ধরনের টিউব, যা গলা ও পাকস্থলীর মধ্যে সংযোগ স্থাপন করে। হার্টবার্নের সময় পেটের ওপরের দিকে এবং বুকের হাড়ের নিচের দিকে জ্বালাপোড়া হচ্ছে বলে মনে হয়।

 

হার্টবার্নের কারণ

আগেই জেনেছেন, এসিড রিফ্লাক্সের কারণে হার্টবার্নের ঘটনা ঘটতে পারে। আবার তা অনেক সময় ‘গার্ড (জিইআরডি)’ বা গ্যাস্ট্রোএসোফাগিয়াল রিফ্লাক্স ডিজিজের কারণ হয়। হার্টবার্নের সম্ভাব্য কারণগুলো জেনে নিন—

১. আঙুরের রস, কমলা ও আনারসের মতো এসিডিক জুস খেলে;

২. টমেটোর মতো এসিডিক সবজি বা খাবার গ্রহণ করলে;

৩. বেশি পরিমাণে চকোলেট খেলে;

৪. কার্বোনেটেড বেভারেজের কারণে;

৫. অতিমাত্রায় ক্যাফেইন ও অ্যালকোহল গ্রহণে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার

 



মন্তব্য