kalerkantho


কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট কী? হার্ট অ্যাটাকের সঙ্গে পার্থক্য কোথায়?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২২:৪২



কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট কী? হার্ট অ্যাটাকের সঙ্গে পার্থক্য কোথায়?

হঠাৎ করেই এবং আকস্মিকভাবে হৃদযন্ত্রের কার্যক্রম এবং নিশ্বাস বন্ধ হয়ে যাওয়া ও জ্ঞান হারানো হলো কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট। হৃদপিণ্ডের কার্যক্রম হঠাৎ বাধাগ্রস্ত হলে এমনটা ঘটে। যার ফলে রক্ত পাম্প করার কাজটিও বাধাগ্রস্ত হয় এবং দেহে রক্ত চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হলে দ্রুত হাসাপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দিতে হয়। আর দ্রুত যথাযথ চিকিৎসা না দিতে পারলে হঠাৎ করেই মৃত্যুও হয়ে যেতে পারে।

হঠাৎ কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট বনাম হার্ট অ্যাটাক
হার্ট অ্যাটাক এবং কার্ডিয়াক অ্যারেস্টের মধ্যে অনেক বড় পার্থক্য আছে। হার্ট অ্যাটাক হলে হৃদপিণ্ডের একটি অংশে রক্ত প্রবাহ বন্ধ হয়ে যায় এবং হার্টের মাংসপেশিতে জখম হয়। অনেক সময় হার্ট অ্যাটাক থেকেও আকস্মিক কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হতে পারে।

কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট এর লক্ষণগুলো
সাধারণত আমাদের দেহের সব রোগই আগে লক্ষণ প্রদর্শন করে তারপর আসে। কিন্তু ডাক্তাররা বলেন, একেবারে কোনো লক্ষণ ছাড়াও কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হতে পারে! কোনো সতর্কতা ছাড়াই আঘাত হানতে পারে কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট। তবে সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, একেবারে আকস্মিক কার্ডিয়াক অ্যারেস্টও কিছু পূর্ব লক্ষণ প্রকাশ করেই আসে। সেই লক্ষণগুলো হলো…

১. ক্রমাগত ঝিমুনি যা সহজেই চলে যায় না।
২. ক্লান্তি বা অবসাদ
৩. শ্বাস ছোট হয়ে আসা বা শ্বাসকষ্ট হওয়া
৪. হৃদপিণ্ডের ধুকপুকানি
৫. কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট এর চার সপ্তাহ আগে বুকে ব্যথা হতে পারে
৬. নারীদের মধ্যে এর লক্ষণগুলো একটু ভিন্ন হতে পারে…
নারীদের মধ্যে এর লক্ষণগুলো একটু কম অস্পষ্ট এবং দ্ব্যার্থক হতে পারে। যেমন বুক ব্যথা অতটা তীব্র নাও হতে পারে। এবং সঙ্গে বমিভাব, ক্লান্তি, পিঠে ব্যথা, ঘাড়ে ব্যথা এবং কাঁধেও ব্যথা হতে পারে।
৭. ধমনীতে শক্ত ব্লক নারীদের মধ্যে খুব একটা দেখা যায় না। কিন্তু পুরুষদের মধ্যে এমনটা সচরাচরই দেখা যায়। এর কারণ হতে পারে নারীদের গর্ভাধারনের সময় প্রিক্ল্যাম্পসিয়া নামে উচ্চ রক্তচাপের একটি সমস্যা হয়। এছাড়া মেনোপোজের সময়ও নারীদের মধ্যে হৃদরোগ দেখা দেয়।

ঝুঁকির উপাদানগুলো কী?
জীবন-যাপন সংক্রান্ত কিছু বিষয় আছে যেগুলো কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট এর ঝুঁকি বাড়ায়। যেমন…
১. উচ্চ রক্ত চাপ বা হাইপারটেনশন
২. ডায়াবেটিস
৩. ধুমপান
৪. উচ্চ মাত্রার কোলেস্টেরল
৫. শারিরীক তৎপরতা একেবারে না থাকা বা কম থাকা
৬. অতিরিক্ত ওজন বা স্থুলতা

 


মন্তব্য