kalerkantho


চিকিৎসা নিতে বিদেশ যাবেন? সব ঝক্কি সামাল দেবে 'আইএমএসসি'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১৯:১৪



চিকিৎসা নিতে বিদেশ যাবেন? সব ঝক্কি সামাল দেবে 'আইএমএসসি'

আমাদের দেশে অনেক ধরনের জটিল রোগের চিকিৎসার জন্যে বড় বড় বিশেষজ্ঞ আছেন। চিকিৎসাব্যবস্থাও প্রতিনিয়ত উন্নতকরণের প্রয়াস চলছে।

তবুও এদেশের চিকিৎসাখাতে সেবার মান নিয়ে হরহামেশাই অভিযোগের কথা উঠে আসে সংবাদমাধ্যমে। তাই অনেকে হাঁপিয়ে উঠেছেন। ভরসাও হারিয়েছেন অনেকে। তা ছাড়া খুব জটিল কোনো রোগ কিংবা অত্যাধুনিক চিকিৎসা সেবা পেতে অনেক মানুষই বিদেশে যান। ভারত, থাইল্যান্ড, তুরস্ক বা সিঙ্গাপুরের মতো দেশে প্রতিবছর অংখ্য মানুষ চিকিৎসার জন্যে ছোটেন। কেউ অনেক দিন ধরেই যাচ্ছেন। আবার কেউ বা নতুন, অদূর ভবিষ্যতে যাওয়ার চিন্তা করছেন।  

কিন্তু রোগী নিয়ে বিদেশ যাওয়া আরেক ঝক্কির বিষয়। এদেশে যার অধীনে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন সেই ডাক্তারের রেফারেন্স লাগবে।

ওটা দেখিয়ে বিদেশের কোনো হাসপাতালের কোনো এক ডাক্তারকে খুঁজে বের করে তার সাক্ষাৎ চেয়ে ইমেইল করতে হবে। অ্যাপয়েনমেন্ট মেলার পর চিকিৎসা ভিসার জন্যে ছুটতে হবে। রোগীকে নিয়েই যখন ব্যস্ততা, তখন এত বড় পরিসরের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে গুছিয়ে আনা নিদারুণ যন্ত্রণার বিষয় হয়ে ওঠে। আর এই বিপদগ্রস্ত মানুষগুলোকে যাবতীয় ঝুট-ঝামেলা থেকে রেহাই দিতে জরুরি হয়ে ওঠে মেডিক্যাল ট্যুরিজম।  

আমাদের দেশে এই খাত খুব বেশি পুষ্ট না হলেও 'ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল সাপোর্ট সেন্টার (আইএমএসসি)' বেশ আস্থার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছে। এটি একটি মেডিক্যাল ট্যুরিজম সংস্থা। এরা দেশের বাইরে চিকিৎসা নিতে যাওয়া মানুষদের নিরাপত্তার সাথে চিকিৎসাগ্রহণ নিশ্চিত করা থেকে শুরু করে সব সেবাই দেয়। তারা যাবতীয় তথ্য ও আইনগত বিষয়ে তথ্য দিয়ে সহায়তা করে। ইন্ডিয়া, থাইল্যান্ড ও তুরস্কের মতো উন্নত দেশগুলোতে রোগীদের উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা নিশ্চিত করে তারা।

ধরুন, কেউ দেশের বাইরে কিডনি প্রতিস্থাপন, লিভার ট্রান্সপ্লান্ট এর মতো চিকিৎসার জন্যে বাইরে যেতে চাইছেন। কিন্তু পর্যাপ্ত তথ্য ও জ্ঞানের অভাবে সাহস পাচ্ছেন না। হয়তো এসব কাজে দৌড়ানোর মতো সঙ্গীও নেই তার। কিংবা যারাই আছেন তারা পেরে উঠছেন না। এই সংস্থা মূলত এই মানুষগুলোর জন্যেই।  

আইএমএসসি সংস্থাটি খুঁটিনাটি সব সেবাই দেয়। রোগী বা তার সঙ্গীদের পাসপোর্ট/ভিসা থেকে শুরু করে প্লেনের টিকেট, বিদেশে গিয়ে থাকার ব্যবস্থা, পছন্দের হাসপাতালে মেডিক্যাল পরীক্ষা, চিকিৎসা শেষ হওয়া পর্যন্ত যাবতীয় তথ্য ও সুযোগ-সুবিধা প্রদান, বিদেশে যাবতীয় লিগ্যাল প্রসেসিং সামলানো, নিরাপত্তার সাথে রোগীকে দেশে ফিরিয়ে নিয়ে আনা- এ সবকিছুর দায়ভার তাদের।

আরেকটি বড় ধরনের ঝামেলা থেকে বেঁচে যান রোগী, জানালেন সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ওসমান আরাবি। বললেন, 'সাধারণ মানুষ যখন জানতে পারে যে তাদের উন্নত চিকিৎসা দেশের বাইরে ছাড়া সম্ভব না, তখন ঘাবড়ে যায়। কারণ এ বিষয়ে তাদের কোনো অভিজ্ঞতা নেই। ঠিক তখনই তড়িঘড়ি করে বিদেশে যাওয়ার সময় দালালের খপ্পরে পড়ে সময় ও টাকা নষ্ট করতে থাকে। আমাদের সংস্থা বৈধভাবে রোগীর সময় ও অর্থ বাঁচিয়ে এই কাজগুলো সম্পন্ন করে থাকে। মেডিক্যাল ট্যুরিজমকে গুণগত মানসম্পন্ন করতেই আমাদের এই প্রচেষ্টা। '  

একটা সময় আমাদের এখানে বিদেশের বড় বড় হাসপাতালের ইনফরমেশন সেন্টার থাকবে। বড় ধরনের লক্ষ্য নিয়েই আমরা এগোচ্ছি। রোগীদের চিকিৎসা ভোগান্তি অনেকটাই কমে যাবে বলে আশাপ্রকাশ করেন ওসমান আরাবি।

ইতিমধ্যে অর্থোপেডিক, কার্ডিওলজি, প্লাস্টিক সার্জারিসহ কিডনি ও হার্ট ট্রান্সপ্লান্টের মতো বড় বড় চিকিৎসা সেবা নিপুনভাবে সম্পন্ন করেছে সংস্থাটি। তারা সবাই শতভাগ সেবা পেয়েছেন।  

যারা বিদেশে চিকিৎসা নিতে যাচ্ছেন এবং গোটা কর্মযজ্ঞ সামলাতে অভিজ্ঞদের সহায়তা চান, তারা যোগাযোগ করতে পারেন-
ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল সাপোর্ট সেন্টার (আইএমএসসি), রোড : ৪ (বনানী থানার পাশে), ব্লক : এফ, হাউজ : ৩১, বনানী, ঢাকা।
ফোন নম্বর : ০১৭০৬৯১৬৩০৩, ই-মেইল : http://corporatezone000@gmail.com 


মন্তব্য