kalerkantho


মানুষ মানুষের জন্য

ছেলেটাকে তোমরা কেউ চেন?

একটি চিঠি আর পাঁচ ডলার রেখে গিয়েছিল ছেলেটি, ক্রিসি মেরির বাড়ির দরজায়। তারপর থেকে প্রশ্নটি ক্রিসি করেই যাচ্ছেন, চেনা-অচেনা সবাইকে। ঘটনাটি ডেইলি মেইলে খুঁজে পেয়েছেন আরিবা রেজা

১৮ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



ছেলেটাকে তোমরা কেউ চেন?

জেকের চিঠি ও পাঁচ ডলার

ক্রিসির বাড়ি ওয়াশিংটনের লেকউডে। যে ছেলেটিকে তিনি খুঁজছেন তাঁর নাম জেক।

নামটি ছিল চিঠিটায়।

চিঠিটা সে-ই লিখেছে। কেন জেক চিঠিটা লিখতে গেল। কারণ সে ক্রিসির একটি উইন্ড চাইম (হাওয়া ঘণ্টা) চুরি করেছে। আর চিঠির সঙ্গে রেখে গেছে পাঁচ ডলার। গোল তো এখানেই বেঁধেছে। চুরি করেছে আবার চিঠি আর টাকাও রেখেছে। টাকা রেখেছে যেন ক্রিসি আরেকটি নতুন চাইম কিনে নিতে পারে। তাহলে বাবা জেক তুমি নিজে কেন কিনে নাও না? চিঠিতে আছে এ প্রশ্নের উত্তর।

চিঠির কথা তুলে দিয়েছেন ক্রিসি নিজেই তাঁর ফেসবুক পাতায়, মার্চের ৩ তারিখে। তাতে লেখা, ‘আমি দুঃখিত, আমরা তোমার উইন্ড চাইমটা চুরি করেছি। আমার মা মারা গেছেন, আর তিনি প্রজাপতি পছন্দ করতেন। তাই আমার বোন চাইমটি নিল এবং তার ইচ্ছা আমাদের জানালায় এটি লাগাবে। আমাদের কাছে এই পাঁচটি ডলারই আছে কেবল। বেশি থাকলে বেশি দিতাম। দয়া করে আমাদের খারাপ ভেব না। জেক। ’ তার নিচেই ক্রিসি লিখছেন, ‘জেক, আমি জানি না তুমি কে? কিন্তু তুমি ফিরে আসো এবং তোমার টাকা ফেরত নিয়ে যাও সুইটি। আমার কাছে এমন আরো তিনটি উইন্ড চাইম আছে। তুমি ফিরে এসে টাকা এবং নিজের জন্য আরেকটি উইন্ড চাইম নিয়ে যাও। আমি অবশ্যই তোমাদের খারাপ ভাবিনি বা রেগে যাইনি। প্লিজ, আমার বাড়িতে আবার আসো। ’

ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ার পর থেকেই ক্রিসির মেসেজবক্স চিঠির বন্যায় ভেসে যাচ্ছে। সবাই বলছে, আপনি খোঁজ অব্যাহত রাখুন। আমরাও এখন থেকে জেকের খোঁজে নেমে পড়লাম। ক্রিসি আর জেকের খবর ওয়াশিংটনের স্থানীয় পত্রিকায় ছাপা হয়েছে। অনলাইনেও অনেকবার শেয়ার করা হয়েছে, কিন্তু এখনো (১৩ মার্চ) জেককে পাওয়া যায়নি। ক্রিসি পাগলের মতো খুঁজছেন জেককে। বলছেন, ‘আমি এমনকি ছেলেটার বয়সও জানি না। আমি ওকে ভয় দেখাতে চাই না বা বিব্রত করতে চাই না। কিন্তু ওকে না পেলে মনে হচ্ছে আমার দম বন্ধ হয়ে যাবে। ’

ক্রিসি বলছেন, ‘আমি আমার মাকে হারিয়েছি পাঁচ বছর বয়সে। অতএব ভালো করেই জানি, মা হারানো কত কঠিন ব্যাপার। ’


মন্তব্য