kalerkantho


ভুল সবই ভুল

ক্যাপ্টেন কুক অস্ট্রেলিয়া আবিষ্কার করেছেন

সবাই সত্যি জানে—এমন অনেক কথা পরে যাচাই করে দেখা গেছে, সেগুলো মিথ্যা। লিখছেন আসমা নুসরাত

১৮ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



ক্যাপ্টেন কুক অস্ট্রেলিয়া আবিষ্কার করেছেন

আবেল তাসমান তাসমানিয়ায় পৌঁছেছিলেন ১৬৪২ সালে

তাসমানিয়া অস্ট্রেলিয়ার দক্ষিণের একটি দ্বীপরাষ্ট্র। ডাচ নাবিক আবেল তাসমানের নাম থেকেই এর নাম।

আবেল তাসমানিয়ার পশ্চিম উপকূলে পৌঁছেছিলেন ১৬৪২ সালে। অথচ কুকের জন্ম ১৭২৮ সালে। তাসমানের মানচিত্র হাতে নিয়েই কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার পূর্ব অংশে পৌঁছেছিলেন কুক। কথা আরো আছে। এখন গবেষকরা নিশ্চিত করেই বলছেন পর্তুগিজ নাবিকরা অস্ট্রেলিয়ায় পৌঁছেছিলেন ১৫ শতকে, মানে আবেলেরও আগে। তদুপরি ইংরেজদের মধ্য থেকেও একজন কুকের আগেই পেয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার খোঁজ। তবে ইংরেজরা তাঁর কথা বলতে চায় না। কারণ সে ছিল জলদস্যু। এশীয়দের মধ্যে ইন্দোনেশীয়রা বহু আগে থেকে অস্ট্রেলিয়ার আদিবাসীদের ব্যবসা-বাণিজ্য করত। গবেষকরা এরও নানা ধরনের নমুনা পেয়েছেন। তাহলে মাত্র ২৫০ বছর আগে, মানে ১৭৭০ সালে অস্ট্রেলিয়া পৌঁছে কুক কিভাবে আস্ত একটা মহাদেশের আবিষ্কর্তা বনে গেলেন? কারা তাঁকে এত মহান করে তুলতে চাইল? কেন চাইল?

এ প্রশ্নের উত্তর গবেষকরা সোজা করেই দিয়েছেন। তাঁরা বলেছেন, ইংরেজরা তাঁদের শ্রেষ্ঠত্ব জাহির করতে কুককে মহান বানিয়েছে। পর্তুগিজ, স্প্যানিশ আর ডাচরা নৌপথে তাঁদের থেকে অনেক এগিয়ে ছিল। কলম্বাস বা ভাস্কো দা গামার কথা এখানে অনেকের মনে পড়বে। অথচ ইংরেজরা তখন পৃথিবীর অনেক জায়গায়ই রাজত্ব প্রতিষ্ঠা করেছে, তাই তাদের মুকুটে কুকের পালক যোগ করা দরকার ছিল। অস্ট্রেলিয়াকে নিজেদের ভূখণ্ড দাবি করার ক্ষেত্রেও কুকের কথা প্রচার করা জরুরি হয়ে পড়েছিল। কুক অস্ট্রেলিয়া পৌঁছানোর পর ইংরেজরা একটি কথা খুব প্রচার করেছিল—টেরা নুলিয়াস মানে নোবডিজ ল্যান্ড। এটি বলার মধ্য দিয়ে একটি বিষয় বৈধ করা যায় এবং আরেকটিকে চাপা দেওয়া যায়। প্রথম বিষয়টি হলো যেহেতু এটি কারুর ভূখণ্ড নয়, তাই আমাদের। আর চাপা দেওয়া গিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার আদিবাসীদের হত্যা করার বিষয়টি।


মন্তব্য