kalerkantho


৫০ বছরে ব্রিটিশ বাংলা সাপ্তাহিক 'জনমত'

জুয়েল রাজ, লন্ডন থেকে   

১৬ মার্চ, ২০১৯ ১১:৩৪



৫০ বছরে ব্রিটিশ বাংলা সাপ্তাহিক 'জনমত'

বাংলাদেশের বাইরে প্রথম কোনো বাংলা পত্রিকার ৫০ বছর পূর্তি উদ্‌যাপন করল লন্ডন থেকে প্রকাশিত পত্রিকা সাপ্তাহিক 'জনমত'। 'শতাব্দী ছুঁয়ে যাবার দুর্নিবার আকাঙ্ক্ষায়' শ্লোগান নিয়ে ব্রিটিশ পার্লামেন্ট, হাউজ অব কমন্সে, গত ১৪ মার্চ, বছরব্যাপী উদ্‌যাপিত হওয়া সুবর্ণজয়ন্তী উৎসবের শুভসুচনা হয়েছে। অনুষ্ঠানে বিপুলসংখ্যক এমপি, রাজনীতিক, ব্যবসায়ী এবং কমিউনিটি ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব জনমতের দীর্ঘ পথচলায় শুভেচ্ছা জানান, জনমতের সাথে সম্পর্কিত স্মৃতিচারণ করেন। 

একটি দেশের জন্মকালীন মুখপত্র হিসেবে 'জনমত' পত্রিকার পথচলা শুরু, অর্ধশতকের অব্যাহত পথচলায় যে কমিউনিটি ছিল সার্বক্ষণিক সঙ্গী, তাদের সাথে নিয়ে জনমত উদ্‌যাপন করল তার ঐতিহাসিক মাইলফলক। হাউজ অব কমন্স এর কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারিয়ান অ্যাসোসিয়েশন (সিপিএ) রুমে আয়োজিত এই বিশেষ অনুষ্ঠানের হোস্ট ছিলেন নারী ও সমতাবিষয়ক ছায়া মন্ত্রী ডন বাটলার এমপি। অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে ব্রিটিশ ফরেন অ্যান্ড কমনওয়েলথ মিনিস্টার, মার্ক ফিব বলেন, জনমত তার পথচলায় ৫০ বছর পূর্ণ করায় আমি খুবই আনন্দিত এবং এটি যেন শতাব্দী ছুঁতে পারে সে জন্য শুভ কামনা থাকল। তিনি বলেন, সাপ্তাহিক পত্রিকা হিসেবে এটি যাত্রা যখন শুরু হয়েছিল, আমার ধারণা এর আকার ছিল অনেক ছোট। ইন্টারনেট যুগের অনেক আগে এর যাত্রা শুরু।

ব্রিটিশ বেঙ্গলি এবং বাংলাদেশি জনগণের মধ্যে জনমত এর রয়েছে বিপুল পাঠকগোষ্ঠী। ফরেন অফিসের এশিয়া অ্যান্ড প্যাসিফিক বিষয়ক মিনিস্টার অব স্টেট মার্ক ফিহ আরো বলেন, ৫০ বছর ধরে জনমত এর অবিশ্বাস্য ভ্রমণ এখন ইতিহাসে পরিণত হয়েছে। জনমত এর যখন শুরু, তখন বাংলাদেশ ছিল পূর্ব পাকিস্তান। বাংলাদেশের স্বাধীনতা লাভের পর এখানকার বাঙালি কমিউনিটি ও বাংলাদেশের মানুষের মধ্যে সেতুবন্ধনেও জনমত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। যুক্তরাজ্যের সাথে বাংলাদেশের শক্তিশালী সম্পর্ক রয়েছে এবং এই সম্পর্ক দিনকে দিন আরো শক্তিশালী হবে।

ছায়া মন্ত্রী ডন বাটলার বলেন, ব্রিটেনে অভিবাসী কমিউনিটির মুখপত্র হিসেবে জনমত এর ৫০ বছর এবং এর সাফল্যগাথায় আমি ভীষণভাবে গর্বিত। আজ এখানে বিপুলসংখ্যক অতিথির আমন্ত্রণ জানাতে পেরে এবং জনমত এর বছরব্যাপী অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী পর্বটির আয়োজক হতে পেরে আমি আনন্দিত। জনমত এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর আমিরুল চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে অভ্যাগতদের আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাগত জানান জনমত সম্পাদক নবাব উদ্দিন। জনমত ও কমিউনিটির মধ্যকার মেলবন্ধন তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন প্রধান সম্পাদক সৈয়দ নাহাস পাশা। সবশেষে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বক্তব্য রাখেন জনমত এর অন্যতম কর্ণধার, এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর জুনেদ চৌধুরী।

৫০ বছর আগে ১৯৬৯ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি জনমত প্রতিষ্ঠাতাদের একজন এবং সাবেক প্রধান সম্পাদক আনিস আহমদ সবাইকে জনমত এর শুরুর দিকের গল্প শোনান। তিনি বলেন, জনমত আজ অর্ধশতাব্দী পালন করছে দেখে আমি আবেগে আপ্লুত। আমি বিশ্বাস করি পাঠক ও কমিউনিটির জন্য এটি একটি মাইলফলক। আজকের এই উৎসবে আমি থাকতে পারব, এটা ছিল আমার ভাবনারও অতীত। তিনি বলেন, জনমত তার যাত্রাকে আরো সুসংহত করতে ডিজিটাল মাধ্যমে বিনিয়োগ করছে দেখে আমি খুবই আনন্দিত, এ কারণে যে, হয়তো সময়ের সাথে এই আত্মীকরণ  জনমতকে আরো ৫০ বছর পথচলার সামর্থ্য দেবে।

অন্যান্য বক্তাদের মধ্যে ছিলেন যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিম, বাংলাদেশের নিযুক্ত সাবেক ব্রিটিশ হাইকমিশনার, ব্রিটিশ কূটনীতিক আনোয়ার চৌধুরী, বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড বোম্বর এমপি রুশনারা আলী, পপলার অ্যান্ড লাইমহাউজ এর এমপি জিম ফ্জিপ্যাট্রিক, এলিং সাউথহল এর এমপি ভিরেন্দ্র শর্মা, সাটন অ্যান্ড চেহাম এর কনজারভেটিভ এমপি পল স্কালি, ইউকে বাংলাদেশ ক্যাটালিস্টস অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাষ্ট্রি (ইউকেবিসিসিআই) এর প্রেসিডেন্ট বজলুর রশিদ এমবিই, বাংলাদেশ ক্যাটারার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিসিএ) এর সাবেক প্রেসিডেন্ট পাশা খন্দকার এমবিই, ব্রেন্ট কাউন্সিলের সাবেক মেয়র কাউন্সিলর পারভেজ আহমেদ, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের প্রেসিডেন্ট এমদাদুল হক চৌধুরী, ঢাকা রিজেন্সি হোটেল অ্যান্ড রিসোর্ট এর চেয়ারম্যান মুসলেহ উদ্দিন, বাংলাদেশ সেন্টার লন্ডন এর সহসভাপতি মুহিবুর রহমান মুহিব প্রমুখ।

অতিথিরা জনমত এর ৫০ বছর পূর্তিতে এর সাথে জড়িত সকলকে অভিনন্দন জানান এবং আগামী প্রজন্ম এই ঐতিহাসিক প্রকাশনার শতবর্ষ পালন করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তাঁরা বলেন, জনমত ব্রিটেন থেকে প্রকাশিত সবচেয়ে পুরনো বাংলা সাপ্তাহিক শুধু নয়, এটি একটি চেতনা, বাংলাদেশি কমিউনিটির জীবন সংগ্রাম আর আত্মপরিচয়ের প্রতীক।

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেটেও আয়োজিত হয়ে জনমত উৎসব। বহু মানুষের জীবন আর সময়ের উত্থান-পতনের গল্পকে সঙ্গী করে এগিয়ে যাওয়া জনমত এর দুর্দান্ত ৫০ এর মাইলফলকের অংশীদার হতে কমিউনিটির প্রতি আহ্বান জানান।



মন্তব্য