kalerkantho

ভিয়েনায় ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উদ্‌যাপন

আনিসুল হক, ভিয়েনা (অস্ট্রিয়া) থেকে   

৮ মার্চ, ২০১৯ ০৯:১১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভিয়েনায় ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উদ্‌যাপন

অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনার প্যান এসিয়া হলে ৭ মার্চ, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় 'বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ' শীর্ষক এক আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি খন্দকার হাফিজুর রহমান নাসিম। পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম কবির।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সর্ব-ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি, অস্ট্রিয়াপ্রবাসী মানবাধিকারকর্মী, লেখক, সাংবাদিক এম নজরুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন, অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আকতার হোসেন, এ কে এম সওকত আলী, মুক্তিযোদ্ধা সিরাজ চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক নয়ন হোসেন, লুৎফর রহমান সুজন, অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগ নেতা আহমেদ ফিরুজ, মাহাবুব খান শামীম, গাজী মোহাম্মদ, অস্ট্রিয়া যুবলীগের সভাপতি ইয়াসিম মিয়া বাবু প্রমুখ।

সভায় প্রধান অতিথি এম নজরুল ইসলাম বলেন, ৭ই মার্চ আগুনঝরা দিন। ১৯৭১ সালের এদিন জাতির স্বপ্নদ্রষ্টা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেসকোর্স ময়দানে ইতিহাসের অনন্য ভাষণটি দেন। মাত্র ১৯ মিনিটের ওই ভাষণে তিনি গোটা বাঙালির প্রাণের সমস্ত আকুতি ঢেলে দিলেন। তা ছিল, অধিকারবঞ্চিত বাঙালির শত হাজার বছরের আশা-আকাঙ্ক্ষা এবং স্বপ্নের উচ্চারণে সমৃদ্ধ। তিনি বলেন, তাই বাংলাদেশের স্বাধীনতার ইতিহাসে ৭ই মার্চ এক অত্যুজ্জ্বল মাইলফলক। আজকের দিনে আমরা শ্রদ্ধা জানাই রাজনীতির অমর কবি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে।

খন্দকার হাফিজুর রহমান নাসিম বলেন, আমাদের জীবনে ৭ই মার্চের গুরুত্ব অপরিসীম। এদিন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রেসর্কোস ময়দানে ঘোষণা করেন 'এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম আমাদের স্বাধীনতার সংগ্রাম'। ওই দিন বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে বাঙালি দলমত-ধর্মবর্ণ নির্বিশেষে স্বাধীনতার লক্ষ্যে ঐক্যবদ্ধ হয়েছিল।

বায়েজিদ মীর বলেন, সেদিন ২৩ বছরের পাকিস্তানিদের অত্যাচার-নিপীড়ন আর সীমাহীন বঞ্চনা থেকে মুক্তির জয়বার্তাই কেবল বঙ্গবন্ধু ঘোষণা করেননি বাঙালির সামাজিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতিক মুক্তির রূপরেখাও রয়েছে তাঁর ওই ভাষণে।

সাইফুল ইসলাম কবির বলেন, ২৩ বছরের পাকিস্তানি শোষণ-নিপীড়ন-নিষ্পেষণের জিঞ্জির ভাঙতে বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের কালজয়ী ভাষণ উজ্জীবিত করেছিল বাঙালিদের।

নৈশ ভোজের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।

মন্তব্য