kalerkantho


শুভেচ্ছা বিনিময় সভায় রাষ্ট্রদূত

বাংলাদেশের নির্বাচনকে অংশগ্রহণমূলক বলেছে জাতিসংঘ

শামীম আল আমিন, নিউ ইয়র্ক   

২৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ১২:৩২



বাংলাদেশের নির্বাচনকে অংশগ্রহণমূলক বলেছে জাতিসংঘ

বাংলাদেশে অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হয়েছে বলে মনে করে জাতিসংঘ। সেই সঙ্গে অতীতের মতো বর্তমান সরকারের সঙ্গে নিবিড়ভাবে কাজ করার ব্যাপারেও জাতিসংঘ প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় সভায় এসব কথা জানিয়েছেন জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন। ২০১৯ সালকে স্বাগত জানিয়ে আয়োজন করা এই অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত আরো বলেন, বিগত বছরের মতো চলতি বছরেও, রোহিঙ্গা ইস্যুতে সোচ্চার থাকবে বাংলাদেশ। যেন নিরাপদ প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া জোরদার করা যায় তার জন্যে জাতিসংঘের সঙ্গে কাজ চালিয়ে যাওয়ার কথাও জানান তিনি। 

নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশ মিশনে আয়োজিত এই মতবিনিময়সভায় মাসুদ বিন মোমেন বলেন, এসডিজি বাস্তবায়ন, বৈশ্বিক স্বাস্থ্য, উষ্ণায়ন, জলবায়ু পরিবর্তন এবং চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের বিষয়টিও চলতি বছর জাতিসংঘে গুরুত্ব পাবে। বহুপাক্ষিক এবং দ্বিপাক্ষিক ফোরামে কাজের ধরন, ভিন্নতা এবং সাফল্য অর্জনের মাপকাঠির বিষয়েও বিস্তারিত তুলে ধরেন তিনি। 

স্থায়ী প্রতিনিধি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্ব এবং বিচক্ষণ কূটনৈতিক প্রজ্ঞায় জাতিসংঘের সাথে বাংলাদেশ অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বজায় রেখে চলেছে। এই ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক আরো বাড়ানো এবং বাংলাদেশের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো সাফল্যের সঙ্গে সেখানে তুলে ধরার জন্যে কাজ করছে স্থায়ী মিশন। জাতিসংঘের মতো আন্তর্জাতিক ফোরামে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের অংশগ্রহণের বিষয়ে সংবাদ পরিবেশনের জন্যে এ সময় সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জানান রাষ্ট্রদূত।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুন্নেসা। সাম্প্রতিক সময়ে কনস্যুলেটের সেবার মান বাড়ানোসহ বিভিন্ন উদ্যোগের কথা বিস্তারিত তুলে ধরেন তিনি। কনসাল জেনারেল বলেন, নিউ ইয়র্কে কনস্যুলেটের স্থায়ী ভবন নির্মাণের বিষয়ে তারা অনেকটাই এগিয়ে গেছেন। নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী দায়িত্ব নেওয়ার পর পরই এ বিষয়ে উদ্যোগ নেওয়ার জন্যে নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানান সাদিয়া ফয়জুন্নেসা। তিনি বলেন, গত বছর কনস্যুলেট অফিস ৩০ হাজারেরও বেশি প্রবাসীকে সেবা দিয়েছে। তার মধ্যে কেবল 'নো ভিসা রিকোয়ার্ড' সেবাই দেওয়া হয়েছে ১৬ হাজার ২০৫ জনকে। সেই সঙ্গে তিনি ভবিষ্যৎ পরিকল্পণার বিস্তারিত পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে তুলে ধরেন।

বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের উপস্থায়ী প্রতিনিধি তারেক মো. আরিফুল ইসলাম মিশনের ২০১৮ সালের গুরুত্বপূর্ণ কার্যক্রম ও অর্জনের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন। পরে মতবিনিময়সভায় উপস্থিত সাংবাদিকরা নানা প্রশ্ন করেন। সাংবাদিকদের ফুল দিয়ে স্বাগত জানানোর পাশাপাশি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রকাশিত নতুন বছরের ডায়েরি, ক্যালেন্ডার এবং স্থায়ী মিশন প্রকাশিত ২০১৮ সালের প্রেস রিলিজ সংকলন উপহার হিসেবে দেওয়া হয়।



মন্তব্য