kalerkantho


জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনে মুজিবনগর দিবস পালন

নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি   

১৯ এপ্রিল, ২০১৮ ০৪:৩২



জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনে মুজিবনগর দিবস পালন

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালন করেছে জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন ও নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশ কনস্যুলেট।

স্থানীয় সময় গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নিউ ইয়র্কের ম্যানহাটনে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় প্রবাসে বেড়ে উঠা শিশু-কিশোরদের মাঝে মুজিবনগর দিবসের ইতিহাস ও তাৎপর্য তুলে ধরার আহ্বান জানানো হয়।

স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন মুজিবনগর দিবসের তাৎপর্য ও ইতিহাস তুলে বলেন, মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল গঠিত স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকার মেহেরপুর জেলার বৈদ্যনাথতলার আম্রকাননে ১৭ এপ্রিল শপথ গ্রহণ করে। সেদিন থেকে এই স্থানটি পরিচিতি পায় মুজিবনগর নামে। মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রাতিষ্ঠানিক স্বীকৃতির জন্য এই সরকারের কোনো বিকল্প ছিল না উল্লেখ করেন তিনি।

রাষ্ট্রদূত মাসুদ বলেন, মুজিবনগর সরকারের অসংখ্য চ্যালেঞ্জ ছিল, কিন্তু তা সত্ত্বেও তারা সুচারুরূপে সরকার পরিচালনা করেছেন। এর উৎকৃষ্ট প্রমাণ তারা সে সময়ের আয়-ব্যয়ের হিসাব পর্যন্ত রেখেছিলেন। এর থেকে প্রমাণিত হয় এ সরকার অন্যান্য ক্ষেত্রেও ছিল অত্যন্ত সফল।

প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন রাষ্ট্রদূত মোমেন। একই সঙ্গে তিনি প্রবাসীদের জন্য ঐতিহাসিক মুজিবনগর পরিদর্শনের সুযোগ করে দেবারও আহবান জানান।

নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল মো. শামীম আহসান বলেন, মুজিবনগর সরকার শুধু মুক্তিযুদ্ধই পরিচালনা করেননি, প্রতিকূল পরিবেশ মোকাবিলা করে বিশ্ব জনমতকে পক্ষে এনেছে। মুজিবনগরে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকারের শপথ গ্রহণের ফলেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তৎকালীন পাকিস্তান সরকারের অধীনে কর্মরত উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশি কূটনীতিকরা সব প্রতিকূলতাকে উপেক্ষা করে পাকিস্তানের পক্ষ ত্যাগ করে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আনুগত্য আনেন যা বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশের স্বীকৃতি অর্জনে সহায়ক ভূমিকা রেখেছিলেন।

সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মুকিত চৌধুরী ও আব্দুল বাতেন।

আলোচনা পর্ব শেষে মুজিবনগর সরকারের প্রয়াত সকল সদস্য, জাতীয় চার নেতা ও মহান মুক্তিযুদ্ধের ত্রিশ লাখ শহীদ এর আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।


মন্তব্য