kalerkantho


খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি

হোয়াইট হাউজের সামনে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ

সাবেদ সাথী, নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০৫:২৫



হোয়াইট হাউজের সামনে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ

ছবি: কালের কণ্ঠ

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অবিলম্বে মুক্তির দাবিতে যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে হোয়াইট হাউজ ও পররাষ্ট্র দপ্তরের সামনে বিক্ষোভ করেছে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মিরা। ওয়াশিংটনের স্থানীয় সময় সোমবার দুপুরে অনুষ্ঠিত উক্ত বিক্ষোভ সমাবেশে বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য থেকে আসা শত শত নেতাকর্মিরা অংশ নেন। আর এ কর্মসূচির মধ্য দিয়ে নেতৃত্বের কোন্দলে পাঁচ ভাগে বিভক্ত বিএনপির নেতাকর্মিরা দল ও দলনেত্রীর স্বার্থে আপাতত ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে সোমবার সকালে নিউ ইয়র্ক থেকে কয়েকটি বাস যোগে শতশত নেতা-কর্মিরা সমাবেশের উদ্দেশে ওয়াশিংটন ডিসিতে রওয়ানা হন। নিউ ইয়র্ক ছাড়াও ওয়াশিংটন ডিসি, ভার্জিনিয়া, মেরিল্যান্ড, নিউ জার্সি, ম্যাসাচুসেটস (নিউ ইংল্যান্ড), কানেকটিকাট, পেনসিলভানিয়া, ক্যালিফোর্নিয়া, ফ্লোরিডা, মিশিগান, ইলিনয় বিএনপির নেতা-কর্মিরাও ঠিক দুপুরে একই স্থানে এসে হাজির হন। গত ১৮ ফেব্রুয়ারি রবিবার সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের একটি রেস্তোরাঁয় অনুষ্ঠিত এক যৌথ প্রস্তুতি সভা থেকে এ কর্মসূচিকে মানববন্ধন ঘোষনা করা হলেও শেষে বিক্ষোভ সমাবেশে রুপান্তরিত হয়।

দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অবিলম্বে মুক্তির দাবিতে ক্ষুব্ধ নেতা-কর্মিরা দেশ ও সরকার বিরোধী বিভিন্ন শ্লোগানে প্রকম্পিত করে তোলেন হোয়াইট হাউজ এলাকা।
সমাবেশে বিএনপির নেতারা বলেন, আগামী নির্বাচনে নীল নকশা বাস্তবায়ন করতেই খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে কারাবন্দি করেছে। দেশনেত্রীকে অবিলম্বে মুক্তি না দিলে প্রবাসে আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। আন্দোলনের মধ্য দিয়েই আমরা খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে নিয়ে আসব।

বক্তারা আরো বলেন, সকল দেশপ্রেমিক মানুষদের ঐক্যবদ্ধ করে যথা শিগগির এই ফ্যাসিস্ট অপসারণ করে দেশের গণতন্ত্রকে মুক্ত করতে হবে। দেশের বর্তমান পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে একটি উপায়, তাহলো একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন।

পররাষ্ট্র দপ্তরের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির নেতা-কর্মিরা পররাষ্ট্র দপ্তরের দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক কার্যালয়ের দায়িত্বরত কর্মকর্তার হাতে দাবি দাওয়া সম্বলিত একটি স্মারকলিপি পেশ করেন। উক্ত স্মারকলিপিতে খালেদা জিয়ার স্থায়ী জামিন, সকল মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সকল মামলা প্রত্যাহার এবং আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে হওয়ার দাবি উল্লেখ হয়েছে বলে জানান বিএনপি নেতারা। একই সঙ্গে বাংলাদেশে বর্তমান পরিস্থিতি ও বিএনপির নেতা-কর্মিদের ওপর নির্যাতন, মিথ্যা মামলা, হত্যা ও গুম বন্ধের দাবিও জানানো হয়েছে বলে উল্লেখ করেন বিএনপি নেতারা।

বিক্ষোভ সমাবেশে অংশগ্রহণকারী যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির নেতারা হলেন- গিয়াস আহমেদ, জিল্লুর রহমান জিল্লু, শরাফত হোসেন বাবু, ডা. মজিবুর রহমান মজুমদার, মোস্তফা কামাল পাশা বাবুল, জসিম ভূঁইয়া, আনোয়ার হোসেন, মোহাম্মদ আনোয়ারুল ইসলাম, বাকির আজাদ, মিজানুর রহমান ভুইয়া মিল্টন, হাফিজ খান সোহায়েল, নিয়াজ আহমেদ জুয়েল, কাজী শাখাওয়াত হোসেন আজম, পারভেজ সাজ্জাদ, ফারুক হোসেন মজুমদার, জাকির এইচ চৌধুরী, আবু সাইদ আহমেদ, আবু তাহের, কাওসার আহমেদ, গোলাম ফারুক শাহীন, কামাল সাঈদ মোহান, আবুল বাসার, ভিপি আলমগীর, টেক্সাস বিএনপি নেতা মোহাম্মদ বশির, নিউ জার্সি বিএনপি নেতা সৈয়দ জুবায়ের আলী, ওয়াশিংটন বিএনপি নেতা মোহাম্মদ হোসেন, শিকাগো বিএনপি নেতা ডেইজি ইসলাম, মোজাম্মেল নান্টু,  নিউ ইংল্যান্ড বিএনপি নেতা সৈয়দ বদরে আলম সাইফুল, আলী হায়দার মনসুর, সোহরাব এইচ খান, নিজাম উদ্দিন চৌধুরী নিশো, পেনসিলভানিয়া বিএনপি নেতা শাহ ফরিদ, এন হায়দার মুকুট, একে এম রফিকুল ইসলাম ডালিম, প্রফেসর নুরুল আমিন পলাশ, শেখ হায়দার আলী, ওয়াহেদ আলী মন্ডল, মীর মশিউর রহমান, আব্দুস সবুর, মাওলানা আবুল কালাম আজাদ, আহবাব চৌধুরী খোকন, খলকুর রহমান, সুয়েব আহমেদ, ওদুদ খান, শামীম আহমেদ,নাজমুন নাহার বেবি, মোঃ ওমর ফারুক, মোঃ নাসির উদ্দিন, ড.নুরুল আমিন পলাশ, ফারুক হোসেন মজুমদার, ছাইদুর খান ডিউক, নাছিম আহমেদ, তানভীর হাসান খান প্রিন্স,আব্বাস উদ্দিন দুলাল, মনির হোসেন, শাহাদাত হোসেন, এস এম ফেরদৌস, ফিরোজ আহমেদ, সেলিম রেজা, নাসির উদ্দিন, ফারুক চৌধুরী, নূরুল আমিন নাসির, আমানত হোসেন আমান, ইমরান রন শাহ, রেজাউল আজাদ ভুইয়া, সাইফুর খান হারুন, আতিকুল হক আহাদ, মাহমুদ চৌধুরী, নওশাদ হোসেন, সিদ্দিক হোসেন রুবেল প্রমুখ। এছাড়া শারীরিক অসুস্থতার কারণে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতা আব্দুল লতিফ সম্রাট সমাবেশে উপস্থিত না হতে পারলেও টেলি কনফারেন্সের মাধ্যমে সার্বক্ষণিক খবরা খবর নিয়েছেন বলে জানা গেছে।



মন্তব্য