kalerkantho


ভার্জিনিয়ায় মূলধারার সেতুবন্ধন শীর্ষক সেমিনার

সাবেদ সাথী, নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি   

৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০১:০৬



ভার্জিনিয়ায় মূলধারার সেতুবন্ধন শীর্ষক সেমিনার

ছবি : কালের কণ্ঠ

যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়া, ওয়াশিংটন ডিসি ও ম্যারিল্যান্ড অঙ্গরাজ্যে বসবাসরত বাংলাদেশিদের নানাবিধ সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্রে মূলধারার সেতুবন্ধন শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্থানীয় বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব আমেরিকা আয়োজিত গত রবিবার ভার্জিনিয়ার স্প্রিংফিল্ড লইসিডেল কোর্ট নামক এলাকায় এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিষ্ঠান পিপলএনটেক ইন্সটিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী আবু হানিফ। তিবি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রবাসী বাংলাদেশিরা মেধা ও দক্ষতা নিয়ে তাদের কাজ করছেন। সবখানেই তারা ভালো করছেন। একুশতম শতাব্দীতে বাংলাদেশি ছিটমহল প্রায় আত্মনির্ভরশীল একটি সম্প্রদায়। আমরা এখানে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ডাক্তার, প্রকৌশলী, কম্পিউটার বিজ্ঞানীরা, প্রোগ্রামার্স, ওয়েব ডিজাইনার, আইনজীবি, হিসাবরক্ষক, ভোটাধিকার মালিক, অধ্যাপক, গবেষণা বিজ্ঞানীরা, ফার্মাসিস্ট, নার্স, বিনিয়োগ ব্যাংকার, বীমা কোম্পানী, ব্যবস্থাপনা পরামর্শদাতা, কবি, লেখক, কলামিস্ট, সাংবাদিকদের নিয়ে অনেক গর্ব করতে পারি।

তিনি বলেন, রকফেলার ফাউন্ডেশন-অ্যাস্পন ইনস্টিটিউট ডাইসপোরা বিশ্লেষণ অনুসারে, বাংলাদেশিরা সাধারণ মার্কিন জনসংখ্যার চাইতে উন্নততর শিক্ষা লাভের প্রবণতা এবং এশিয়ার অন্যান্য সম্প্রদায়ের তুলনায় উচ্চতর বাড়ির আয়কর প্রদান করে আসছে। শিকাগোর তিনটি রাস্তার নাম পুনর্বিন্যস্ত করতে সফল হয়েছেন। বাংলাদেশি ড. ফজলুর রহমান খানের সম্মানে সিয়ার্স টাওয়ার (বর্তমানে উইলিস টাওয়ার) এর পাদদেশে অবস্থিত, যা "উচ্চমানের ভবন নির্মাণের পিতা" নামে পরিচিত।

তিনি বলেন, এঞ্জেলেসে, বাংলাদেশি সম্প্রদায় লিটল কোরিয়া এলাকা থেকে একটি বিভাগ তৈরি করেছে এবং এটিকে "লিটল বাংলাদেশ" নামে অভিহিত করেছে। সালমান খান-খান একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা এবং জাভেদ করিম-ইউটিউব কো-প্রতিষ্ঠাতা। আরেকটি নাম ড. কালি প্রদীপ চৌধুরী, যিনি মূলধারার আমেরিকাতে অবদান রেখেছেন এবং বাংলাদেশে ১৪২টি সংরক্ষিত ভবন নির্মাণের পরিকল্পনা করছেন।

লি শহরের ডিস্ট্রিক্ট সুপারভাইজার জেফ ম্যাককে বলেন, নভেম্বরের মধ্যবর্তী নির্বাচনের গুরুত্ব অনেক। সেই নির্বাচনে আমেরিকান মূল্যবোধের প্রতিফলন ঘটাতে হবে।

সামাজিক নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ প্যাট্রিক ক্যালি বলেন, যারা নাগরিকত্ব নিয়েছেন, তাদেরকে ভোটার হিসেবে তালিকাভুক্ত হতে হবে। ভোট না দিলে মার্কিন প্রশাসনে কোন নাগরিকের গুরুত্ব থাকে না। আর্শি কিবরিয়া বলেন, নিজেদের মধ্যে দ্বিধা-দ্বন্দ্ব পরিহার করে আমেরিকান স্বপ্ন পূরণে সবাইকে মূলধারায় যুক্ত হতে হবে। সেমিনারে আরও আলোচনা করেন ‘সিটিজেন’ ম্যাগাজিনের সম্পাদক মোহসীন সিদ্দিক ও সুহা খন্দকার।


মন্তব্য