kalerkantho


মালয়েশিয়ায় ফ্রি থাকা খাওয়া!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৩:১৭



মালয়েশিয়ায় ফ্রি থাকা খাওয়া!

ছবি অনলাইন

বাংলাদেশ থেকে অনেকেই এখন মালয়েশিয়ায় গিয়ে চাকরি করতে আগ্রহী। কিন্তু তাদের এ আগ্রহের কতটুকু মিলবে মালয়েশিয়ায়, তেমন কোনো ধারণা নেই। সম্প্রতি মালয়েশিয়ায় বিপুলসংখ্যক বাংলাদেশি অভিবাসী গিয়ে বিপদে পড়ছেন।

নতুন করে যারা মালয়েশিয়ায় যেতে চান তাদের জন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি সতর্কতামূলক পোস্ট দিয়েছেন মালয়েশিয়া প্রবাসী ও প্রবাসী কণ্ঠ পত্রিকার সম্পাদক গৌতম রায়। তার সেই পোস্টটি তুলে ধরা হলো এখানে-

বাংলাদেশে কোন কাম কাজ নেই এ অজুহাতে যারা এখন বিভিন্ন ভিসায় মালয়েশিয়া আসতে চাচ্ছে তাদের জন্য আমার সুপরামর্শ হচ্ছে, আসার আগে কিছু মশার কয়েল বা মশারী নিয়ে আসতে ভুল করবেন না। কারণ, আজ হোক কাল হোক আপনাকে বনবাসে যেতে হবে বা জঙ্গলবাস করতে হবে।

আরো পড়ুন : এ বছর মালয়েশিয়া যাবে ৫-৭ লাখ কর্মী

মালয়েশিয়ার মশাগুলো খুব নির্দয়। বাংলাদেশি রক্ত ওদের খুব প্রিয়। দালাল বাটপাররা খেয়ে যেটুকু থাকবে সেটা ওরা খাবে। কিন্তু কেন সেটা আর বলব না। ভুলেও ভাববেন না ৩/৪ লাখ টাকা দালালকে দিয়েছেন বলেই আপনি জামাই আদরে থাকবেন।

আর জঙ্গলবাস পছন্দ না হলে এদেশের সরকার বিনা মূল্যে থাকা খাওয়ার ব্যবস্থাও করে রেখেছে। এমনকি ওরা এতটাই মানবিক যে, জঙ্গল থেকে ধরে এনেও আপনাকে ফ্রি খাবার দিবে। কিন্তু খাবার তালিকাটি কেমন একটু জেনে নিন।

আরো পড়ুন : মালয়েশিয়া প্রবাসীদের ভাগ্য নির্ধারণে বৈঠক আজ

অর্ধ কাপ ভাত, শুকনো মাছ (ইকান বিলিস), বালুমিশ্রিত সবজি, সামান্য এক টুকরো অর্ধসেদ্ধ মুরগীর হাড্ডি বা চামড়া। ভাগ্য সুপ্রসন্ন হলে মাংস জুটবে। সকাল ১২ টায় লাঞ্চ, সন্ধ্যা ৬ টায় ডিনার। আর সকালে ২/১ টা রুটি বা বিস্কুট। সাথে দুধ চিনি ছাড়া চা। পানির পর্যাপ্ত ব্যবস্থা আছে গোসলখানা বা টয়লেটে। আর গোসল করতে হবে ১০/১২ জন এক সাথে। বাপ বেটা সবাই উলঙ্গ হয়েই। এক কাপড়েই থাকতে হবে সেখানে। আর ঘুমানোর ব্যাবস্থা থাকবে মেঝেতে সিমেন্টে গাদাগাদি করে। দু:খিত, বালিশ কম্বল মিলবে না।
সেখানে আপনি পর্যাপ্ত সময় পাবেন গান করার আর মাথা থেকে বিদেশ আসার পোকা তাড়ানোর। সেখানে জনপ্রিয় গান হচ্ছে- মা আমি বন্দী কারাগারে.... যারা ধূমপায়ী তাদের কষ্টটা খুব বেশী হবে। তবে ধূমপান ছেড়ে দেবার একটা মোক্ষম সুযোগ হবে আপনার। তবে ভুল ভ্রান্তি কিছু করলে চড় থাপ্পড় শাস্তি কিন্তু বোনাস। সকাল বিকাল শরীর চর্চাও হবে।

যারা দেশে কিছু করতে পারছেন না বা বিদেশ আসার পোকা মাথায় ঢুকিয়ে রেখেছেন বা যে অভিভাবকরা সন্তানের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য দালালের অমৃত বচনে মুগ্ধ হয়ে ছেলেকে মালয়েশিয়া পাঠিয়ে ধন্য হতে চাচ্ছেন তারা অবশ্যই এ বিষয়ে একটা প্রশিক্ষণ দেশেই শুরু করতে পারেন। পরে এদেশে এলে শরীরে পেটে সয়ে যাবে।

ভুলেও ভাববেন না আমি দুষ্টুমি করছি! ভাবুন তো এত সুন্দর টিপস কেউ কোনদিন দিয়েছে? ভবিষ্যতের জন্য বিনা মূল্যে একটা ভালো টিপস দিলাম, যা প্রত্যেক নবাগতের জন্য প্রযোজ্য হতে পারে। কাজেই মালয়েশিয়ায় দালাল মাধ্যমে অতি সত্ত্বর চাকুরী করতে আসুন, সরকারের আন্তরিক সেবা গ্রহণ করুন। টিপস কেমন লাগলো জানাবেন কিন্তু।


মন্তব্য