kalerkantho


নিউ ইয়র্কে অগ্নিকাণ্ডের কারণ চুলার আগুনে শিশুর খেলা!

নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি   

৩০ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০৩:৫৬



নিউ ইয়র্কে অগ্নিকাণ্ডের কারণ চুলার আগুনে শিশুর খেলা!

চুলার আগুন নিয়ে এক শিশুর খেলা করার সময় নিউ ইয়র্কের ব্রঙ্কেসের আবাসিক ভবনে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই ভবনের দ্বিতীয় তলায় রান্না ঘরে এক শিশু চুলা নিয়ে খেলা করার সময় হঠাৎ আগুন ধরে গেলে সাত বছরের কম বয়সী চার শিশুসহ অন্তত ১২ জনের মৃত্যু ঘটে।

স্থানীয় সময় শুক্রবার সরকারি রেডিও ডব্লিউএনওয়াইসি’র নিয়মিত রেডিও ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন নিউ ইয়র্কের মেয়র বিল ডি ব্লাসিও।

নিউ ইয়র্কের মেয়র বিল ডি ব্লাসিও বলেন, এটা ভয়ঙ্কর, হৃদয়বিদারক দুর্ঘটনা। আগুন অনেক দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। অনেকগুলো প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। নিহতদের মধ্যে এক, দুই ও সাত বছর বয়সী তিন কন্যাশিশুও রয়েছে। তাদের তাৎক্ষণিকভাবে শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। বাকিরা সবাই প্রাপ্তবয়স্ক। তাদের মধ্যে চার নারী ও চারজন পুরুষ রয়েছেন। তবে তাদের কাউকে শনাক্ত করা যায়নি। এছাড়া চারজন গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা ৫০ মিনিটে শুরু হওয়া আগুন পাঁচতলা ভবনের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে। এতে ভবনের সবকটি তলার বাসিন্দারাই আক্রান্ত হয়েছেন। ভবনটিতে কমপক্ষে ছয়টি বিল্ডিং কোড ভঙ্গ করা হয়েছে। এর মধ্যে গত আগস্টে সেখানকার ধোঁয়া শনাক্তকারী যন্ত্রটি ভেঙে যায় বলে নগর কর্তৃপক্ষের কাছে তথ্য আছে। তবে আগুনের ঘটনার আগে তা মেরামত করা হয়েছিল কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ডি ব্লাসিও বলেন, আগুন লাগার ক্ষেত্রে ভবনের কোনও সমস্যা ছিল না।

নিউ ইয়র্ক শহর কর্তৃপক্ষ বলছে, বহু বছরের মধ্যে নিউ ইয়র্কের কোনো ভবনে অগ্নিকাণ্ডে এতো বেশি সংখ্যক প্রাণহানি হয়নি। মেয়রের দাবি, অন্তত ২৫ বছরের মধ্যে আগুনের কারণে এতো বড় ধরনের ট্রাজেডি দেখেনি ব্রংকসের বাসিন্দারা।

যুক্তরাষ্ট্রের ফোর্ডহাম ইউনিভার্সিটি এবং ব্রঙ্কস চিড়িয়াখানার কাছে প্রসপেক্ট অ্যাভিনিউতে পাঁচ তলাবিশিষ্ট আবাসিক ভবনটি অবস্থিত। স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা ৫০ মিনিটের দিকে ১৯১৬ সালে তৈরি ভবনটির দ্বিতীয় তলায় আগুন লাগে। তারপরেই তা ছড়িয়ে পড়ে গোটা বাড়িতে। শহরের দমকল বিভাগের একটি টুইটে বলা হয়, ১৬০ জনেরো বেশি দমকলকর্মী আগুন নেভানোর কাজে নামেন। পরে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

দমকল বিভাগের কমিশনার ড্যানিয়েল নিগ্রো প্রাণহানির সংখ্যা বিবেচনা করে এই আগুনের ভয়াবহতাকে 'ঐতিহাসিক মাত্রা’র বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেছেন, যেসকল মানুষ প্রিয়জন হারিয়েছেন এবং যারা মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছেন তাদের প্রত্যেকের প্রতি আমরা সমবেদনা জানাচ্ছি।

ভবনটির বাসিন্দা ৫৯ বছর বয়সী থিয়েরনো ডিয়ালো জানান, তিনি নীচ তলার একটি কক্ষে ঘুমাচ্ছিলেন। হঠাৎ দরজায় ঠক ঠক শুনতে পান। লোকজন চিৎকার করছিলো: ‘ভবনে আগুন লেগেছে।’ সঙ্গেই সঙ্গে বাইরে বের হয়ে আসেন ডিয়ালো। আক্রান্ত ভবনের পাশের ভবনের বাসিন্দা আনা সান্টিয়াগো জানান, ধোঁয়ার গন্ধ পেয়ে এবং আগুন থেকে পালাতে থাকা কয়েকজন তরুণীকে দেখে নিজেও খালি পায়ে দৌড় দেন।

নগর কর্তৃপক্ষের রেকর্ড অনুযায়ী, ১০০ বছরেরও বেশি পুরনো ভবনটিতে কোনও লিফট ছিল না। ভবনের সন্মুখভাগে ফায়ার এক্সিট দেখা গেছে। দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, পাঁচতলা ভবনটিতে ২০টিরও বেশি ফ্ল্যাট রয়েছে।


মন্তব্য