kalerkantho


যুক্তরাষ্ট্রে ছায়েদুল-মহিউদ্দিনের শোকসভায় স্বাধীনতাবিরোধী চক্র!

সাবেদ সাথী, নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি   

২৩ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০৪:৪৯



যুক্তরাষ্ট্রে ছায়েদুল-মহিউদ্দিনের শোকসভায় স্বাধীনতাবিরোধী চক্র!

ছবি : কালের কণ্ঠ

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ আয়োজিত মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ছায়েদুল হক এবং চট্টগ্রাম সিটির সাবেক মেয়র মহিউদ্দিন চৌধুরীর শোকসভায় রাজাকারের বংশধরদের মঞ্চে বসানোর ঘটনায় নিন্দার ঝড় উঠেছে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী পরিবারে। নিউ ইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কৃত ও রাজাকার পরিবারের একজন সদস্যকে মঞ্চে বসানোর জন্য তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানানো হয়েছে। গত রবিবার বিজয় দিবসের এক অনুষ্ঠানে নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মিরা। এর আগে গত শনিবার সন্ধ্যায় নিউ ইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের একটি রেস্তোরাঁয় যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ উক্ত দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেন। 

নিউ ইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কৃত ও রাজাকার পরিবারের সদস্য জাকারিয়া চৌধুরীকে মঞ্চে বসানোর জন্য যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিদ্দিকুর রহমান এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদকে দায়ী করে নিন্দা জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ড. মহসিন আলী, ড. প্রদীপ রঞ্জন কর, ডা. মাসুদুল হাসান, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. শাহ বখতিয়ার, নিউ ইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুস শুকুর মাখন, সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুর রহমান চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বাতেন, সরাফ সরকার, কাজী কয়েস, রেজাউল করিম প্রমুখ।

সভায় বক্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান প্রধানমন্ত্রীর মৌখিক নির্দেশকে অমান্য করে নিজের ইচ্ছেমত রাজাকারের বংশধরদের মঞ্চে বসিয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ছায়েদুল হক এবং চট্টগ্রাম সিটির সাবেক মেয়র মহিউদ্দিন চৌধুরীর শোকসভা করায় নিহতদের আত্মাকে অপমানিত করেছেন। এ কাজের জন্য তাকে জবাবদিহিতা করতে হবে।

সিদ্দিকুর রহমান যুক্তরাষ্ট্রে বসে রাজাকার পরিবারের সদস্য ও খুনি মোস্তাকের দোসরদের সঙ্গে একের পর এক আঁতাত করেই চলছেন, যা ভবিষ্যতে দেশের জন্য অমঙ্গল বয়ে আনবে। এখনও সময় আছে প্রবাসের নেতাকর্মিরা সকলেই ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই অপশক্তিকে অচিরেই প্রতিহত করতে হবে। তা নাহলে অচিরেই দেশ ও প্রবাসে দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হবে বলে উল্লেখ করে নেতৃবৃন্দরা।



মন্তব্য