kalerkantho


বিভিন্ন কারণে আমিরাতে বাংলাদেশিদের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে

এম আবদুল মন্নান, আমিরাত প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১২:১৮



বিভিন্ন কারণে আমিরাতে বাংলাদেশিদের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে

সংযুক্ত আরব আমিরাতে বিভিন্ন কারণে বিগত পাঁচ বছর ধরে বন্ধ আছে বাংলাদেশি শ্রমিকদের নতুন ভিসা। সাথে রিলিজ ট্রান্সফার  বা এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় ভিসা পরিবর্তন করে লাগানোর সুযোগও বন্ধ।

নতুন ভিসা খোলার বা অন্তত রিলিজ চালুর ব্যাপারে যথাযথ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন সরকার, দূতাবাস ও কনস্যুলেট। কিন্তু এখনও কোন সুফল বা সুখবর নেই।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ডা: মোহাম্মদ ইমরান ও দুবাইতে বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেলসহ দূতাবাস ও কনস্যুলেটের কর্মকর্তারা, প্রবাসের বিভিন্ন সংগঠনের নেতবৃন্দ ও সাংবাদিকরা প্রবাসী বাংলাদেশিদের আয়োজিত বিভিন্ন অনুষ্ঠানে দেশটির আইন-কানুন মেনে চলার পাশাপাশি দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার করার জন্য প্রবাসীদের আহ্বান জানিয়ে আসছেন এবং সকলের সহযোগিতা কামনা করে আসছেন।

কিন্তু অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে এ নিয়ে যেন কোন মাথা ব্যথা নেই এক শ্রেণির বাংলাদেশি প্রবাসীদের। তারা নির্দ্বিধায়  চালিয়ে যাচ্ছে নানা রকম অপরাধ কর্মকাণ্ড, যা স্থানীয় আইনে অপরাধ। আর এসব কর্মকাণ্ড পছন্দ করেন না আমিরাতের নাগরিক ও স্থানীয়  প্রশাসন।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে এমন কিছু লোক রয়েছে যারা দেশটিতে নানা ধরনের অবৈধ কাজ করে নিজ দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করে চলছে রীতিমত। এসব লোক সামান্য কিছু বাড়তি আয়ের জন্য নানা রকম অজুহাত দেখিয়ে চাঁদা তোলা, পতিতার দালালী করা, ম্যাসেজ সেন্টারের দালালী, মদ ও ইয়াবা বিক্রি করা, প্রকাশ্যে  জুয়া খেলা ও জুয়ার আসর পরিচালনা করা, পান বিক্রি করা, কোনো হোটেল বা সুপার মার্কেটের সামনে মোবাইল  ব্যালেন্স বিক্রি করা, রাস্তার পাশে, লেবার ক্যাম্পের সামনে অথবা শুক্রবার জুমা মসজিদের সামনে পোশাকাদি, শাক-সবজি বা মুদি আইটেমের হরেক রকম পণ্যের পসরা বসিয়ে বিক্রি করাসহ নানা বেআইনি কাজ করে যাচ্ছে। যদিও এ সমস্ত কর্মকাণ্ডের অধিকাংশেরই গডফাদার ইন্ডিয়ান ও পাকিস্তানিরা।

কিন্তু   সিআইডি ও পুলিশের ঝটিকা অভিযানে ধরা পড়ে অধিকাংশই বাংলাদেশি প্রবাসী। স্থানীয় প্রশাসন অনেককে ধরে নিয়ে জরিমানা, জেল এমনকি দেশেও পাঠিয়ে দেয়। তারপরও কোন খেয়াল করছে না এসব অপরাধীরা।  

এদিকে বিগত কয়েক মাসে দুবাইয় ও আবুধাবীতে প্রচুর অবৈধ বাংলাদেশি অভিবাসীকে আটক করা হয়েছে। এভাবে প্রতিদিন বিভিন্ন অপরাধে শারজাহ, আজমান, রাস আল খাইমাসহ অন্যান্য প্রদেশ ও অঞ্চলে আটক করা হচ্ছে। অন্যান্য দেশের প্রবাসীরাও আটক হচ্ছে। তবে আনুপাতিক হারে বাংলাদেশের প্রবাসীরা বেশী হচ্ছে।  

এ নিয়ে বাংলাদেশি প্রবাসীদের দিকেই বেশী আঙ্গুল উটাচ্ছে স্থানীয় প্রশাসন ও মিড়িয়া। এর ফলে নতুন ভিসা চালু বার বার বিলম্বিত হচ্ছে। আর গুটিকয়েক অপকর্মের খেসারত ভোগ করতে হচ্ছে সংখ্যা গরিষ্ঠ দেশের প্রবাসী ও দেশবাসীকে।


মন্তব্য