kalerkantho


দার্জিলিং পাহাড়ে সাকিব আল হাসানের এক বড় ভক্ত

দার্জিলিং থেকে ফিরে মাহতাব হোসেন   

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৯:৫৩



দার্জিলিং পাহাড়ে সাকিব আল হাসানের এক বড় ভক্ত

দার্জিলিং এর রক মিউজিয়াম গার্ডেনে যেতে হলে ভয়ংকর সব বাঁক পেরিয়ে পাহাড়ের ওপর থেকে ঠিক দুই-তিন হাজার ফুট নীচে নামতে হয়।   গাড়ি যখন ওপর থেকে নীচে নামে তখন কলজেটা বুকের ঠিক স্থানে মনে হয় থাকে না।

অন্তত আমার জীবনে এতো ভয়ংকর অভিজ্ঞতার মুখোমুখী হইনি। ওপর থেকে যখন গাড়ি নীচে নামে তখন বুক শুকিয়ে যায়, পানির পিপাসা লাগে। কেন এমন হয়? আমি ঠিক বোঝাতে পারছি না জানিনা তারপররেও বলি, পাহাড় থেকে গাড়ি একেবারে খাড়াপথে নীচে নামতে থাকে। চার-পাঁচ মিনিট নামার পর রাস্তা বাঁক নিয়ে নেয়।   এই বাঁক নেওয়ার সময় যদি গাড়ি কোনোভাবে ব্রেক ফেল হয় কিংবা গাড়িওর চালক সঠিক সময়ে গাড়িকে নব্বই ডিগ্রি বাঁক না করতে পারেন তাহলে গাড়ি চলে যাবে অন্তত ৭হাজার ফুট নীচের খাদে। বেঁচে থাকার কোনো সম্ভাবনা বলতেই থাকবে না।

এভাবেই অসংখ্য বাঁক পেরিয়ে চলে আসতে হয় রক মিউজিয়াম গার্ডেনে।   কি আছে এই রক মিউজিয়াম গার্ডেনে? প্রতাকৃতিক সৌন্দর্যের দার্জিলিং এর অনন্য সৌন্দর্য লুকিয়ে আছে এখানেই।   তেনজিং হিলারির নামে একটি পাথরের পর্বতের নামকরণ করা হয়েছে।

এছাড়া অনেকগুলো প্রাকৃতিক ঝর্ণা রয়েছে।   কৃত্রিমভাবে সৌন্দর্য বৃদ্ধি করা হয়েছে। পাহাড়ে ওঠা নামার জন্য সিঁড়ি, কিছু ভাস্কর্য, বাগান ঐতিহাসিক কিছু প্রস্তরখণ্ড রয়েছে।   দার্জিলিং এর একটি কলেজে অনার্স পড়ুয়া ছাত্রা সাঞ্জু এখানেই গড়ে তুলেছেন দারুণ একটি ব্যবসা।   কি সেই ব্যবসা? দার্জিলিং এর ঐতিহ্যবাহী পোশাক নিয়ে বসেছেন সাঞ্জু ও তার আরেক বন্ধু। দর্শনার্থীরা এখানে এসে সেইসব পোশাক পরে ছবি তোলেন।   সিজনের সময়ের বেশ দারুণ ব্যবসা।   চা বাগানের মেয়েদের পোশাক, ট্রাডিশনা পুরুষের পোশাক রয়েছে।   দর্শনার্থীরা সেসব পোশাক ৩০ রুপিতে সাঞ্জুর কাছে ভাড়া নেন। এরপর পরিধান করে ছবি তোলেন।   দার্জিলিং বেড়াতে যাবেন আর ঐতিহ্যবাহী পোশাকে ছবি তুলবেন না তা কি করে হয়?  

সাঞ্জুর সাথে কথা বলতেই হিন্দিতে বললেন, ওয়াও তোমরা বাংলাদেশ থেকে এসেছ? আমি তো তোমাদের দেশের সাকিব খানের বড় ফ্যান।   আমি বললাম তাই নাকি? খেলা দেখো?  সে উত্তরে জানায়, অবশ্যই  খেলা দেখি। আমার বাসায় সাকিব আল হাসানের বড় বড় পোস্টার রয়েছে। আমি তার খুব ভক্ত। তার খেলা হলেই টিভির সামনে থেকে নড়ি না।   যদি খেলা মিস হয় তাহলে আমি ইন্টারনেট থেকে খেলা দেখে নেই।   কথা বলার সময় সাঞ্জুর চোখে মুখে ফুটে ওঠে দারুণ মুগ্ধতা।  

দার্জিলিং বেড়াতে গেলে যে কেউ সাকিবের এই ভক্তকে খুব সহজেই খুঁজে বের করতে পারবেন। কেননা রক মিউজিয়াম গার্ডেনের ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরতে গেলেই তার দেখা পাওয়া যাবে।    


মন্তব্য