kalerkantho


আমিরাতে অমর একুশ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

এম, আবদুল মন্নান, আমিরাত প্রতিনিধি   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২২:৪২



আমিরাতে অমর একুশ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

বাংলাকে জাতিসংঘের অফিসিয়াল ভাষা করার জোর দাবি নিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতে নানা কর্মসূচির মাধ্যমে অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে আবুধাবীস্থ বাংলাদেশ
দূতাবাস প্রাঙ্গণে সকালে রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরান জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করার মধ্য দিয়ে দিনের কর্মসূচি শুরু করেন।

এরপর তিনি বিভিন্ন রাজনৈতিক,  সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোকে নিয়ে দূতাবাসের অস্থায়ী শহীদ বেদীতে পুষ্পার্ঘ্য নিবেদন করেন।

পরে দূতাবাস মিলনায়তনে দূতাবাসের উদ্যোগে রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরান এর সভাপতিত্বে  একুশে ফেব্রুয়ারি  শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। মোহাম্মদ ওসমান গণির পরিচালনায় অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর দেয়া বাণী পাঠ করে শোনান যথাক্রমে দূতাবাসের মিনিস্টার ইকবাল হোসেন চৌধুরী, কাউন্সিলর (রাজনৈতিক) শহীদুজ্জামান ফারুকী, শ্রম কাউন্সিলার আরমান উল্লাহ চৌধুরী ও শ্রম সচিব এ কে এম মকসুদ  আলী।

এতে বঙ্গবন্ধু পরিষদ, বাংলাদেশ সমিতি, জনতা ব্যাংক, বিমান বাংলাদেশসহ বিভিন্ন সংগঠনের কর্মকর্তারা  ও নেতারা বক্তব্য দেন। পরে ভাষা শহীদসহ সকল শহীদের আত্মার মাগফেরাতে বিশেষ দোয়া করা হয়।

অতঃপর স্থানীয় সসময় সকাল সাড়ে ১১টায়  আবুধাবীস্থ  শেখ খালিফা বিন যায়েদ বাংলাদেশ ইসলামিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজে প্রথমবারের মত নির্মিত শহীদ বেদীতে পুষ্পার্ঘ্য নিবেদনের করা  হয়।

সেখানে দূতাবাসের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন  আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরান।

স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক অধ্যাপক আবু তাহেরের পরিচালনায় এ অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মীর আনিসুল হাসান।

রাষ্ট্রদূত তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘ভাষা আন্দোলনের পথ ধরে যে স্বাধীনতা অর্জন সে স্বাধীনতাকে আরও অর্থবহ করে তুলতে সরকার কাজ করছে।

’ তিনি নতুন প্রজন্মকে সঠিকভাবে মাতৃভাষা, দেশিয় সংস্কৃতি, ঐতিহ্য সম্পর্কে জ্ঞান দানের অপরিহার্যতার কথা তুলে ধরেন এবং প্রতিষ্ঠানের বিদেশি শিক্ষকদের বাংলাদেশ সম্পর্কে সম্যক তথ্য ও জ্ঞান ছড়িয়ে দেয়ার পরামর্শ দেন।

অধ্যক্ষ মীর আনিসুল হাসান বলেন, একুশে আজ কেবল আমাদের নয়, বিশ্ববাসীর। আর আমরা তাই এ গৌরবের অংশীদার। অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের আবৃত্তি, ভাষার গান ও নৃত্য পরিবেশনা সবাইকে মুগ্ধ করে।

অনুষ্ঠানে দূতাবাস, জাতীয় পতাকাবাহী প্রতিষ্ঠান সমুহের প্রধান কর্মকর্তারা, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, বাংলাদেশ সমিতির নেতৃবৃন্দ ও শেখ খালিফা বিন যায়েদ বাংলাদেশ ইসলামিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও দুবাইয়ের বাংলাদেশ কন্সুলেটও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

রাতে আবুধাবীতেও বাংলাদেশ সমিতিসহ বিভিন্ন সংগঠন এ উপলক্ষে নানা অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে।


মন্তব্য