kalerkantho


রাতে কুকুরদের দখলে চলে যায় শহর!

থিম্পু থেকে মাহতাব হোসেন   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২১:৪০



রাতে কুকুরদের দখলে চলে যায় শহর!

অল্প অল্প বৃষ্টি পড়ছিল। খুব দ্রুত হোটেলে ফিরতে হবে।

এমন তাড়া থেকেই হোটেলে ফেরার সময় দেখি পথ আগলে আছে ৮-১০ টা কুকুর। মনে পড়লো আজ কুকুর নিয়েই লিখতে চেয়েছি। কেননা গতরাতে কুকুরের ডাকে ঘুম হারাম হয়ে যাবার যোগাড় হয়েছিল।  

পারোতে যখন আমরা পৌঁছবো রাস্তার লাঞ্চ ব্রেকের সময় একজন বলেছিল কুকুরের জ্বালায় অতিষ্ঠ হতে হবে, সারারাত ঘুম হবে না। খুব দু:খজনক হলেও সত্য বেজক্যাম্প হোটেলে সেদিন ঘুম দারুণ হয়েছিল। ঘুমে ব্যাঘাত ঘটেনি।  কুকুরের ডাক শোনার জন্য একবার বারান্দায় বের হয়ে এক সেকেন্ডের অর্ধেকেরও কম সময়ে নিজেকে রুমে ঢুকিয়ে নেই। মনে হলো শত শত ব্লেড শরীরে আঘাত করে গেল, মুহূর্তেই শরীরে শত শত ব্লেডের পোচ! ঠাণ্ডার তীব্রতা এতোটাই ছিল। সম্ভবত মাইনাস ডিগ্রিতে তাপমাত্রা নেমে এসেছিল পারোর সে রাতে।

 

গতকাল ছিল থিম্পুর প্রথম রাত। দারুণ শান্তির শহর। যেন সবখানেই ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে শান্তি। আমি যে হোটেলে রয়েছি, পর্দা সরালেই রাস্তা, তারপরেই পাহাড়। চোখ জুড়িয়ে যায়। আহা!

সারাদিন শান্তিময় কাটলেও রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে খেয়াল করলাম কুকুরের ডাক বাড়ছে। মধ্যরাত। বাইরে শীত পড়ছে, আর রাস্তায় শত শত কুকুর ডেকে যাচ্ছে। জানালার কাছে দাঁড়ালাম। রাস্তা দিয়ে মাঝে মাঝে একটা দুটা গাড়ি ছুটে যাচ্ছে।  কোনো এক বার থেকে তরুণ-তরুণী বের হয়ে হেলেদুলে হেঁটে যাচ্ছে। আর এই রাতে গোটা থিম্পুজুড়ে ডেকে যাচ্ছে অজস্র কুকুর। যেন রাতের থিম্পু চলে গেছে কুকুরদের দখলে।


মন্তব্য