kalerkantho


ভুটানিদের সততার দৃষ্টান্ত!

ভুটান থেকে মাহতাব হোসেন   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২২:২১



ভুটানিদের সততার দৃষ্টান্ত!

পারো যাত্রাপথে রয়্যাল ইউনিভার্সিটি অফ ভুটানের গেদু কলেজ অফ বিজনেস স্ট্যাডিজ।

পারোর উদ্দেশ্যে ফুয়েন্টশোলিং ছাড়ার আগে যে ঘটনাটা পুরো পথজুড়ে আনন্দিত করে রাখলো তা হলো ভুটানিদের সততা। পারো হচ্ছে ভুটানের একটি প্রসিদ্ধ শহর।

টাইগার নেস্টের জন্য বিখ্যাত। আর ফুয়েটশোলিং ভুটানের সীমান্তবর্তী শহর।  

মূল ঘটনায় আসি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তানজিনা যখন গতকাল রাতে নিজের মোবাইল হারিয়ে খুব বিমর্ষভাবে হোটেলে ফিরে এলেন তখনই তাকে হোটেলের একজন ভুটানি জানালেন, আপনি মনে করে দেখেন কোথায় ফোন রেখে এসেছেন, মনে করতে পারলে পেয়ে যাবেন। ' 

সকালে পারো'র উদ্দেশ্যে বাস ছাড়ার আগেই অনুমানের ওপর নির্ভর করে তানজিনা হোটেলের খুব নিকটবর্তী কেসি স্টোরে চলে গেলেন।  কেননা এই চেইন স্টোরেই রাতে তিনি বন্ধুদের সাথে এসেছিলেন। কিছু কেনাকাটা করেছেন। যতদূর মনে পড়ে এখানেই তিনি ফোন রেখে গিয়েছিলেন। কিন্তু সেটাও নিশ্চিত না।

সকালে বাস ছাড়ার আগে যখন দোকানের সামনে গিয়ে দাঁড়ালেন তখনও দোকান খোলে নি। এরইমধ্যে দুই-একজনকে জিজ্ঞেস করতেই তারা অপেক্ষা করতে বললেন। এও জানালেন যদি ছেড়ে গিয়ে থাকেন তানজিনা তাহলে সেটা অবশ্যই পাওয়া যাবে।  

প্রায় আধঘণ্টা পর কেসি স্টোর খোলার পর পরই তানজিনা জানালেন ফোন হারানোর কথা। লামাহে নামের দোকানের তরুণী হাসলেন। তানজিনাকে জানালেন এমন একটি ফোন তারা পেয়েছেন। এরপরেই ফোনটা এগিয়ে দিলেন। ভুটানিদের সততার এতো কথা শুনে এসেছেন সেটার প্রমাণ এমনভাবে পেয়ে যাবেন ভাবতেই পারেন নি। তানজিনা আপ্লুত হয়ে জড়িয়ে ধরলেন লামাহেকে।


মন্তব্য