kalerkantho


ফুয়েন্টশোলিং শহরের 'বাংলাভাষা'

ভুটান থেকে মাহতাব হোসেন   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২১:১৫



ফুয়েন্টশোলিং শহরের 'বাংলাভাষা'

ভুটানের ফুয়েন্টশোলিং শহরটা অদ্ভুত। পুরো শহরটা প্যাঁচানো অজগরের মতো।

ভারতের সীমান্তবর্তী শহরটি পাহাড়ের ওপর পেঁচিয়ে পেচিয়ে ওপরে উঠেছে আবার বিভিন্ন দিক থেকে খুব সহজভাবে নেমে গেছে। মানে রাস্তা ওঠানামার কথা হচ্ছিল, আর রাস্তার ধারে ধারে গড়ে উঠেছে বিভিন্ন দোকানপাট।  

শহরে যেন লুকিয়ে নিবিড় শান্তি। আর এই শান্তির খোঁজেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে নানা ভাষার পর্যটক ভিড় করে এখানে।  ফুয়েন্টশোলিংয়ের বিভিন্ন ভাষার মধ্যে অন্যতম প্রচলিত ভাষা বাংলা। সন্ধ্যায় শহরের একটা কফিশপে গিয়েছি কফি খেতে। হিন্দি আর ইংরেজির মিশেলে কথা বলতে গিয়ে দুয়েকটা বাংলা শব্দ চলে আসছিল নিজের অজান্তেই। কফিশফের ছেলেটা বুঝতে পারল আমরা বাংলাভাষী। তারপর থেকে সেই শুরু করে দিল বাংলা বলা।

তরুণ স্মার্ট ছেলে। নাম করণ। সেই জানালো ফুয়েন্টশোলিংয়ে বাংলাটা বেশ প্রচলিত ভাষা।  

করণের কথা যাচাই করতে গিয়ে একটা মোবাইল টেলিকমের দোকানে বাংলায় কথা বলতেই উত্তরও পেলাম বাংলায়। ভুটানিজ দোকানির নাম গুড়ুম। তার কাছে জানতে চাইলাম কেন বাংলা প্রচলিত! গুড়ুম জানালেন পশ্চিমবঙ্গের সীমান্তঘেষা শহর হওয়াতে এখানে প্রায় সব দোকানেই বাংলার চল রয়েছে। তার মানে বাংলা দিয়েই ভুটানের এই শহরে প্রয়োজনীয় বাক্যালাপ সেরে নেওয়া যায়।

কাপড়ের দোকানে গিয়ে দেখলাম সেখানে বাংলাদেশি পণ্য। সোয়েটার, শার্ট জামা বাংলাদেশের তৈরি। দামও বেশ কম। ভুটানিজ দোকানিরা রীতিমতো বাংলাতেই আমাদের সাথে কথা চালিয়ে গেলেন। ভিনদেশে এসে আমরা বাংলায় কাজ চালিয়ে যাচ্ছি, মন্দ লাগছে না। যদিও তাঁদের উচ্চারণে কিছুটা ভিন্নতা রয়েছে। তারপরেও বাংলা তো..।


মন্তব্য