kalerkantho


নিউ ইয়র্ক প্রবাসী গাইবান্ধাবাসীদের মানববন্ধন

নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি   

৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০২:৪৬



নিউ ইয়র্ক প্রবাসী গাইবান্ধাবাসীদের মানববন্ধন

গাইবান্ধায় গণউন্নয়ন কেন্দ্র পরিচালিত কুন্দের পাড়া গণউন্নয়ন একাডেমি পুড়িয়ে দেওয়ার প্রতিবাদে নিউ ইয়র্ক প্রবাসী গাইবান্ধাবাসীদের এক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত শনিবার বিকেলে জ্যাকসন হাইটস ডাইভারসিটি প্লাজায় এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এ প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাষ্ট্র উদীচীর সহ-সভাপতি সুব্রত বিশ্বাস। মানববন্ধনের শুরুতেই বাংলাদেশ থেকে টেলিকনফারেন্সে বক্তব্য রাখেন গণউন্নয়ন কেন্দ্রের নির্বাহী প্রধান এম আব্দুস সালাম। কুন্দের পাড়া গণউন্নয়ন একাডেমি পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ এবং এই নাশকতার সাথে জড়িত সন্ত্রাসীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় এনে অবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে বক্তব্য দেন প্রাবন্ধিক ও সাংবাদিক শিতাংশু গুহ, সাপ্তাহিক বর্ণমালা ও ৭১ টিভি যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি মাহফুজুর রহমান, বিশিষ্ট রাজনীতিক ও সমাজসেবক জাকির হোসেন বাচ্চু, বাপ্স'র সম্পাদক হাকিকুল ইসলাম খোকন, উত্তরবঙ্গ ফাউন্ডেশনের সভাপতি মো. আতোয়ারুল ইসলাম, আয়োজকদের পক্ষে দীলিপ মোদক। সমাবেশে প্রস্তাবনা পাঠ করেন মিষ্টি বর্মণ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সনজীবন কুমার।

সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক মোহাম্মদ আবুল কাশেম, ঠাকুরগাঁও জেলা সমিতির সভাপতি মোস্তফা কামাল মামুন, সমাজসেবক লিয়াকত হোসেন, সাবেক ছাত্রনেতা জীবন শফিক, গাইবান্ধা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক কমিশনার নাজমা শওকত, শওকত হোসেন, প্রতীমা সরকার, পপি ঘোষ, মেহেদী ইসলাম মিথুন, এম ডি মাহফুজুল ইসলাম তুহিন, ফাহমিদা লুনা তুহিন, শরিফ হোসেন, নিয়ন ইসলাম, সুমনা লিয়ন প্রমূখ। বিদ্যালয়টি অগ্নিকাণ্ডে ভস্মীভুত হওয়ায়, ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বক্তারা। তারা বলেন, যে বা যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তারা মানুষ না, অমানুষ। যারা এই অপরাধটি করেছে, তারা মানুষকে, সমাজকে অন্ধকারে রাখতে চায়।

সমাবেশে থেকে এর তীব্র প্রতিবাদ করে এই নাশকতার সাথে জড়িত সন্ত্রাসীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় এনে অবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়। সেই সাথে চরাঞ্চলে সুবিধা বঞ্চিত শিক্ষার্থীদের শিক্ষার উন্নয়ন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কুন্দের পাড়া গণউন্নয়ন একাডেমি বিদ্যালয়কে এমপিওভুক্ত করা এবং সরকারি আর্থিক সহায়তায় জরুরিভিত্তিতে বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন নির্মাণসহ আসবাবপত্র, লাইব্রেরির, বই পুস্তক, ও শিক্ষা উপকরণের সরবরাহ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবি করা হয়। আর যে সমস্ত শিক্ষার্থীর সনদপত্র পুড়ে গেছে, তাদের সনদপত্রের ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বোর্ড কর্তৃপক্ষের কাছে আহ্বান জানানো হয়।


মন্তব্য