kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি হিন্দু সম্প্রদায়ের দুই শতাধিক পূজামণ্ডপে দর্শনার্থীদের ভিড়

সাবেদ সাথী, নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি   

১১ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:২৬



যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি হিন্দু সম্প্রদায়ের দুই শতাধিক পূজামণ্ডপে দর্শনার্থীদের ভিড়

যুক্তরাষ্ট্রে দুর্গা পূজার অনুষ্ঠান কোনো গোষ্ঠী বা সম্প্রদায়ে সীমাবদ্ধতা পেরিয়ে এতে সব ধর্ম ও সম্প্রদায়ের মানুষই শামিল হচ্ছে। এটি সত্যিই সর্বজনীন উৎসবে রূপ নিয়েছে।

বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে শুরু হওয়া সনাতন ধর্মালম্বীদের সর্ববৃহৎ উৎসব দুর্গাপূজা রুপ নেয় সার্বজনীন উৎসবে। গত রবিবার যুক্তরাষ্ট্রে ছিলো মহা অষ্টমীতে  ‘কুমারীপূজা’। সকাল থেকেই ছিল গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। প্রাণের সেই উৎসবে যোগ দিতে বৃষ্টি মাথায় নিয়েই ভক্ত-পূজারিরা দলে দলে ছুটে আসেন পূজামণ্ডপের দিকে। শঙ্খের ধ্বনি, কাঁসর ঘণ্টা, ঢাকের বাদ্য ও উলুধ্বনির মধ্যে দিয়ে রবিবার বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের স্থায়ী ও অস্থায়ী মন্দিরে কুমারীপূজা উদ্যাপিত হয়েছে।

মাতৃভাবে কুমারী কন্যাকে জীবন্ত প্রতিমা করে তাতে জগজ্জননীর উদ্দেশে শ্রদ্ধা নিবেদন করাই কুমারীপূজা। গতকাল সোমবার শারদীয় দুর্গোৎসবের মহানবমীতে ষোড়শ উপাচারের সঙ্গে ১০৮টি নীলপদ্মে পূজিত হবেন দেবী  দুর্গা। হিন্দু ধর্মগুরুদের মতে, নবমী পূজায় যজ্ঞের মাধ্যমে দেবী দুর্গার কাছে নিজেকে আহুতি দেওয়া হয়। ১০৮টি বেল পাতা, আম কাঠ, ঘি দিয়ে এই যজ্ঞ করা হয়। ধর্মের গ্লানি আর অধর্ম রোধ, সাধুদের রক্ষা, অসুরের বধ আর ধর্ম প্রতিষ্ঠার জন্য প্রতিবছর দুর্গতিনাশিনী দেবী দুর্গা ভক্তদের মধ্যে আবির্ভূত হন। শুভ বিজয়ার মাধ্যমে জাগতিক প্রাণীকে শোনান সাম্য ও ভ্রাতৃত্বের বাণী। সনাতন ধর্ম মতে, নবমী পূজার মাধ্যমে মানবকুলে সম্পদ লাভ হয়।

নিউ ইয়র্কে ১২ টি মন্দিরসহ যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি হিন্দু সম্প্রদায় পরিচালিত প্রায় দুই শতাধিক মন্দিরে এবারে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। রবিবার সন্ধ্যায় নিউ ইয়র্কের জ্যাকসন হাইটস,  উডসাইড, ব্রঙ্কস, জামাইকা, ব্রুকলিনের বেশ কয়েকটি পূজা মন্ডপে ছিল উপচে পড়া দর্শনার্থী। এসব মণ্ডপে পূজা অর্চনার পাশাপাশি রাতভর চলে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।  

জ্যাকসন হাইটসের ওঁম শক্তি মন্দির, দিব্যধাম মন্দির ও বাংলাদেশ বেদান্ত সোসাইটি এবার নিউইয়র্কে বড় পরিসরে সর্বজনীন শারদীয় দুর্গা উৎবের আয়োজন করেছে। স্থানীয় সময় রবি ও সোমবার উডসাইডের কুইন্স প্যালেসের পূজা মণ্ডপে চলবে দুর্গোৎব। এতে ছিল দুই দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ও ভারতের প্রখ্যাত সঙ্গীত ও নৃত্য শিল্পীদের পরিবেশন করেন। রবিবার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিষদ নিবেদিত গিরীনন্দিনী এবং সোমবার রঞ্জনী নিবেদিত দুর্গতি নাশিনী উপস্থাপন করা হয়। প্রতিদিন সন্ধ্যা ছয়টায় নীলকমল ভৌমিক নিবেদন করেন শ্রী শ্রী চণ্ডীপাঠ।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন বিশিষ্ট নজরুল সংগীত শিল্পী ফেরদৌস আরা, কণ্ঠযোদ্ধা শহীদ হাসান, শিল্পী কৃষ্ণা তিথি, তনিমা হাদী, শাহ মাহবুব, মৌগন্ধা, রোকসানা মির্জা, শতরুপা এবং ইন্ডিয়ান আইডল ভয়েস অব সেভেন সিস্টারস দেবারতি।  

জ্যাকসন হাইটস পূজা ফাউন্ডেশন ৮ অক্টোবর থেকে ৪ দিনব্যাপী জ্যাকসন হাইটসের নান্দুসে জ্যাকসন হাইটস পূজা ফাউন্ডেশন শারদীয় দুর্গোত্সবের আয়োজন করেছে। রবিবার অনুষ্ঠিত সাংস্কৃতিক পর্বে সঙ্গীত পরিবেশন করেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী রিজিয়া পারভিন।  

এ ছাড়াও আমেরিকান বাঙ্গালী হিন্দু ফাউন্ডেশন, হরিচাঁদ-গুরুচাঁদ আন্তর্জাতিক মতুয়া মিশন, সার্বজনীন পূজা উদযাপন পরিষদ, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, রাধা মধাব মন্দির, উত্তর আমেরিকা হিন্দু কল্যাণ পরিষদ, বাংলাদেশ পূজা সমিতি, রাধাকৃষ্ণ সেবক সংঘ মহা ধুমধামে দুর্গাপূজা উদযাপন করছে।


মন্তব্য