kalerkantho

শান্তকে নিথর করল ‘তেতুলিয়ার’ চাকা

সড়ক দুর্ঘটনায় লক্ষ্মীপুর জীবননগর জামালপুরে তিনজনের মৃত্যু

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৬ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শান্তকে নিথর করল ‘তেতুলিয়ার’ চাকা

নুর ইসলাম শান্ত

রাজধানীর শেওড়াপাড়ায় বাসের নিচে পিষ্ট হয়ে নুর ইসলাম শান্ত নামে এক মোটরসাইকেলচালকের মৃত্যু হয়েছে। তেতুলিয়া পরিবহনের একটি বাস চাপা দেয় তাঁকে। এদিকে গতকাল সোমবার লক্ষ্মীপুর, জীবননগর ও জামালপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেছে আরো তিনজনের। এর মধ্যে লক্ষ্মীপুরে মায়ের সঙ্গে রাস্তা পার হতে গিয়ে অটোরিকশার নিচে চাপা পড়ে মৃত্যু হয় সাত বছরের এক শিশুর। জামালপুরে মারা গেছেন এক দলিল লেখক। নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের খবরে বিস্তারিত—

ঢাকা : শেওড়াপাড়া এলাকায় সড়কের বাঁ পাশ দিয়ে মোটরসাইকেল চালিয়ে যাচ্ছিলেন শান্ত (৩১)। ওই সময় তেতুলিয়া পরিবহনের একটি বাস পেছন থেকে তাঁকে ধাক্কা দেয়। নিয়ন্ত্রণ ঠিক রাখতে পারেননি শান্ত। রাস্তায় ছিটকে পড়েন তিনি। বাসটির পেছনের চাকা তাঁর বুকের ওপর দিয়ে চলে যায়। হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনাটি ঘটে গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে; শেওড়াপাড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকার ‘নাজমা ফার্নিচারের’ সামনে। শান্ত পেশায় মোটর মেকানিক ছিলেন। কাজ করতেন ওয়ান ব্যাংকের গাড়ি গ্যারেজে। স্ত্রী রেশমা ও দুই বছরের ছেলেকে নিয়ে থাকতেন মগবাজার এলাকায়।

ঢাকা মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি পশ্চিম) লিটন কুমার সাহা কালের কণ্ঠকে বলেন, বাসের চালককে আটক করে মিরপুর থানায় নেওয়া হয়েছে। বাসটিও জব্দ করা হয়েছে।

শহীদ নামের এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেল একদিকে ছিটকে পড়ে, শান্ত ছিটকে পড়েন আরেক দিকে। শান্তর মাথায় হেলমেট ছিল। কিন্তু তাঁর শরীরের বেশির ভাগ বাসটির পেছনের চাকার নিচে চলে যায়। তিনি আরো বলেন, শান্তকে চাপা দেওয়ার পরও বাসটি এগোতে থাকে। তখন আশপাশের লোকজন চিৎকার করে বাসটি থামায়। চালক বাস থেকে নেমে বলতে থাকে, কী হয়েছে। এ কথা শুনে লোকজন তাকে মারধর শুরু করে। এর কিছুক্ষণ পর আসে পুলিশ।

এর আগে ২০১৭ সালে মিরপুরের সেনপাড়ায় তেতুলিয়া পরিবহনেরই একটি বাসের নিচে চাপা পড়ে মৃত্যু হয় গার্লস আইডিয়াল ল্যাবরেটরি স্কুলের ছাত্রী দিশার। ওই ঘটনার পর স্থানীয় লোকজন বাসটি পুড়িয়ে দিয়েছিল।

লক্ষ্মীপুর : সাত বছরের শিশু ঝর্ণার কয়েক দিন ধরে জ্বর। গতকাল মায়ের সঙ্গে জেলা সদর হাসপাতালে যাচ্ছিল সে। কিন্তু সড়ক পার হয়ে হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই ব্যাটারিচালিত একটি অটোরিকশা তার গতি থামিয়ে দেয়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ঝর্ণার। তাদের বাড়ি সদর উপজেলার টুমচর গ্রামে। ঝর্ণার বাবার নাম স্বপন।

জামালপুর : ইসলামপুর উপজেলায় ভটভটি গাড়ির ধাক্কায় দধি নারায়ণ গোয়ালা (৭০) নামে একজন প্রবীণ দলিল লেখকের মৃত্যু হয়। গতকাল সকাল ১০টার দিকে ইসলামপুর পৌরসভার মধ্যদরিয়াবাদ এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত দধি নারায়ণ গোয়ালা মেলান্দহ উপজেলার বীর হাতিজা গ্রামের বাসিন্দা।

জগন্নাথপুর : সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে টমটম গাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে গেলে স্কুলছাত্রসহ পাঁচ যাত্রী আহত হয়। আহতরা হলেন স্কুলছাত্র সাজিদ মিয়া (১২), অর্জুন বৈদ্য (১৪), সুশীল বৈদ্য (৪৫), নারায়ণ বৈদ্য (৪০) ও লাল মোহন বৈদ্য (৪২)।

জীবননগর : উপজেলায় ট্রাকের ধাক্কায় প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণির ছাত্রী জুঁই (৬) নিহত হয়েছে। সে উপজেলার মনোহরপুর উত্তরপাড়া গ্রামের জসীম উদ্দীনের মেয়ে। গতকাল পসামবার জীবননগর-চুয়াডাঙ্গা মহাসড়কের মনোহরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, জুঁই ইসলামী ফাউন্ডেশনের প্রাক-প্রাথমিকের ছাত্রী ছিল। সে প্রতিদিনের মতো স্কুল শেষে রাস্তার পাশ দিয়ে হেঁটে বাড়ি যাচ্ছিল। এ সময় চুয়াডাঙ্গাগামী একটি ট্রাক পেছন দিক থেকে তাকে ধাক্কা মারে। এতে সে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়।

মন্তব্য