kalerkantho

বাংলাদেশ ব্যাংক গভর্নর

রপ্তানিমুখী অর্থনীতিতে যেতে হবে আমাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গরিব ও অসচ্ছল পরিবারের ৫০০ জন মেধাবী শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দিল বেসরকারি শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংক। শনিবার রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ বৃত্তি প্রদান করা হয়। ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান আক্কাচ উদ্দিন মোল্লার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির। এ সময় গভর্নর বলেন, ‘আমরা এখন উন্নয়নশীল দেশের যোগ্যতা অর্জন করেছি। তবে এর আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি মিলবে ২০২৪ সালে। এর জন্য যেটি দরকার সেটি হলো—আমাদেরকে আমদানিনির্ভর অর্থনীতি থেকে রপ্তানিমুখী অর্থনীতিতে যেতে হবে।’

গভর্নর আরো বলেন, ‘স্বাধীনতার পর আমাদের মাত্র সাড়ে সাত কোটি জনগণ ছিল। তখন খাদ্যের পর্যাপ্ততা ছিল না। এখন ১৬ কোটির বেশি জনগণ, কিন্তু খাদ্যের পর্যপ্ততা আছে। খাদ্য আমদানির প্রয়োজন হচ্ছে না। এটা সম্ভব হয়েছে সরকারের প্রচেষ্টা ও সামষ্টিক অর্থনীতির সঠিক বাস্তবায়নের জন্য।’ শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের এ ধরনের উদ্যোগের প্রশংসা করে গভর্নর বলেন, ব্যাংকটি অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে জনকল্যাণে যে অবদান রেখে চলছে তা অত্যন্ত মহৎ ও গৌরবের বিষয়।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বৃত্তিপ্রাপ্তদের সবাই ২০১৮ সালে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থী, যারা এখন বিভিন্ন কলেজ, মেডিক্যাল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত। এর মধ্যে এসএসসি পর্যায়ে ছাত্র ১৬০ জন ও ছাত্রী ১৪০ জন, এইচএসসি পর্যায়ে ছাত্র ১২০ জন ও ছাত্রী ৮০ জন রয়েছে। এসব শিক্ষার্থীর মধ্যে চার কোটি ১৯ লাখ টাকা বৃত্তি প্রদান করা হবে।

ব্যাংকের চেয়ারম্যান আক্কাচ উদ্দিন মোল্লা বলেন, ‘দুর্যোগসহ যেকোনো সংকটে আমরা সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে সবার পাশে থাকার চেষ্টা করি। ব্যাংকটি শরিয়া ভিত্তিতে পরিচালিত হলেও এখানে মুসলমান, হিন্দু, খিস্ট্রানসহ সব ধর্মের লোকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হয়েছে। কর্মসংস্থান হয়েছে অনেক নারীর। এভাবে ব্যাংকটি জাতীয় অর্থনীতির প্রবৃদ্ধিতে অবদান রাখছে।’

 

 

মন্তব্য