kalerkantho

নারায়ণগঞ্জে যুবলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ৪

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৩ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় আধিপত্য বিস্তার ও পূর্বশত্রুতার জের ধরে যুবলীগ নামধারী দুই গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত দুজনকে ঢাকা মেডিক্যাল ও দুজনকে পঙ্গু হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার রাত ৮টায় রামারবাগ শাহি মসজিদ এলাকায় এই সংঘর্ষ ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, যুবলীগের মোস্তফা গ্রুপের সঙ্গে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব চলছিল প্রতিপক্ষ গিয়াসউদ্দিন গ্রুপের। এর জের ধরে গতকাল প্রথমে বাগিবতণ্ডা ও পরে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে লাঠিসোঁটা, পাইপ, রামদাসহ ধারালো অস্ত্রশস্ত্র ব্যবহৃত হয়। এ সময় বেশ কয়েকটি দোকান ভাঙচুরও করা হয়।

শহরের খানপুরে নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা আহতরা হলো জুয়েল, দেলোয়ার, তমিজ, সজীব, আরিফ, আহাদ, সুমন, সুফিয়া, আলামিন, হারুন, রশিদ ও আশরাফ।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. অমির রায় বলেন, ‘আহতদের বেশির ভাগই ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আহত হয়েছে। মাথায় ও পায়ে গুরুতর জখম হওয়া রোগীই বেশি। আমরা চারজনকে ঢাকায় রেফার্ড করেছি। বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।’

হাসপাতালে এক গ্রুপের মো. রাজীব বলেন, ‘মোস্তফা গ্রুপের লোকজন দীর্ঘদিন যাবৎ এলাকায় মাদক কারবার করে আসছিল। আমরা এলাকাবাসী মাদকবিরোধী মিছিল নিয়ে তাদের বাধা দেওয়ায় এই হামলা চালানো হয়।’ তবে  গিয়াসউদ্দিন গ্রুপের সুলতান বলেন, বিনা উসকানিতে তাদের ওপর প্রথমে হামলা করে মোস্তফার লোকজন। এসব নিয়ে সংঘর্ষ ঘটে। ফতুল্লা মডেল থানার ওসি মঞ্জুর কাদের বলেন, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপে সংঘর্ষ হয়ছে।

মন্তব্য