kalerkantho

জাতীয় যুব নেতৃত্ব সম্মেলনে বক্তারা

তরুণদের ব্যক্তিগত সচেতনতা বাড়াতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তরুণদের ব্যক্তিগত সচেতনতা বাড়াতে হবে। তারাই দেশ পরিবর্তনে সব চেয়ে বেশি ভূমিকা রাখতে পারে। আবার তাদের ভুল সিদ্ধান্ত সমাজকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিতে পারে। শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে তরুণ প্রজন্মকে সঠিক নেতৃত্বে শিখিয়ে দেশের ভবিষ্যৎ এগিয়ে নিতে হবে। গতকাল শুক্রবার দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত ‘ন্যাশনাল ইয়ুথ লিডারশিপ সম্মেলন ২০১৯-এ এসব কথা বলেন বক্তারা।

রাজধানীর ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (আইডিইবি) মিলনায়তনে তারুণ্যের সংগঠন ‘ইয়ুথ ক্লাব অব বাংলাদেশ’ এ আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সম্প্রীতি প্রকল্পের সহযোগিতায় ঢাকা, চট্টগ্রাম, কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রায় ২৫০ জন তরুণ শিক্ষার্থী অংশ নেয়।

সম্মেলন উদ্বোধন করেন মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের কার্যনির্বাহী পরিচালক শাহীন আনাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশের ডিআইজি (অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট) খন্দকার লুত্ফুল কবির, অ্যাডভোকেট মো. শাহ মঞ্জুরুল হক, মুজাহিদ আল বেরুনী সুজন প্রমুখ।

শাহীন আনাম বলেন, ‘বৈষম্য থেকে মুক্তি চাই, দারিদ্র্য থেকে মুক্তি চাই, চাই ধর্মনিরপেক্ষ মাদকমুক্ত একটি রাষ্ট্র। সহিংসতার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে তরুণদের সাহসিকতার সঙ্গে এগিয়ে যেতে হবে। তরুণদেরই সমাজ পরিবর্তনের মূল কারিগরের ভূমিকা রাখতে হবে। আমাদের প্রজন্ম যুদ্ধ করে দেশকে স্বাধীন করেছিল। এর মানে তরুণরা সবই পারে। এখন তরুণদের দায়িত্ব হচ্ছে দেশকে গড়া। সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া।’

মঞ্জুরুল হক বলেন, যুবকদের মধ্যে সম্ভাবনার উপস্থিতি ১৫ বছর পর খুঁজে পাওয়া যাবে না। এখন সময় কাজে লাগাতে হবে। শিক্ষা ও নেতৃত্বের বিষয়ে একসঙ্গে জোর দিতে হবে।

দিনব্যাপী সম্মেলনে অংশগ্রহণকারীরা চেঞ্জ মেকার প্রতিযোগিতা, নেতৃত্বের ক্রমবিকাশ বিষয়ক সেশন, শান্তিপূর্ণ সমাজ প্রতিষ্ঠায় করণীয়, চিন্তাধারার বিকাশ, মতবিনিময়, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে সংযুক্ত হয়ে কাজ করার উপায় তুলে ধরা হয়।

মন্তব্য