kalerkantho

ক্রাইস্টচার্চে সন্ত্রাসী হামলা

বাংলাদেশিদের মরদেহ আসবে সরকারি খরচে

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

২২ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে গত শুক্রবারের সন্ত্রাসী হামলায় নিহত পাঁচ বাংলাদেশির মধ্যে ড. সামাদ ও হোসনে আরার মরদেহ সেখানেই দাফন করা হবে। বাকি তিনজনের পরিবার মরদেহ দেশে দাফন করার কথা জানিয়েছে। মরদেহ দেশে আনার খরচ পুরোটাই বহন করবে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড সরকার। নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশের অনারারি কনসাল ইঞ্জিনিয়ার শফিকুর রহমান অনু গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে কালের কণ্ঠকে এ কথা জানান।

তিনি আরো জানান, নিহত ড. সামাদের পরিবারের পাঁচজনের ভিসা হয়েছে। তারা নিউজিল্যান্ডে যাচ্ছে। এ ছাড়া নিহত জাকারিয়ার স্ত্রী এরই মধ্যে নিউজিল্যান্ডে পৌঁছেছেন। বাকিদেরও ভিসা আবেদন প্রক্রিয়া চলছে। সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, তিন বাংলাদেশির মরদেহ দেশে ফিরিয়ে আনতে কিছুটা সময় লাগবে।

হামলার নিন্দা জানালেন জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞরা : মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার সপ্তম দিনে ওই হামলার নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন জাতিসংঘের দুই বিশেষজ্ঞ। গতকাল বর্ণবাদী বৈষম্য নির্মূলের আন্তর্জাতিক দিবস উপলক্ষে সমসাময়িক বর্ণবাদ, বর্ণবাদী বৈষম্য, ‘জেনোফোবিয়া’ (বিদেশিদের ব্যাপারে ভয়) ও এ সম্পর্কিত অসহিষ্ণুতাবিষয়ক জাতিসংঘের স্পেশাল র‌্যাপোর্টিয়ার ই. তেনদাই অ্যাকিউমি ও আফ্রিকার বংশোদ্ভূত জনবিষয়ক বিশেষজ্ঞ ওয়ার্কিং গ্রুপের সভাপতি মিশেল ব্যালসারজাক বিবৃতি দেন।

মন্তব্য