kalerkantho

রোহিঙ্গা নিপীড়ন তদন্তে মিয়ানমার সেনাবাহিনী

প্রথম দিনই ‘বাঙালি’ সন্ত্রাসী হিসেবে প্রচার

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

১৯ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আন্তর্জাতিক চাপের মুখে মিয়ানমার সেনাবাহিনী এবার নিজেই রোহিঙ্গা নিপীড়নের অভিযোগ তদন্তের ঘোষণা দিয়েছে। মিয়ানমারের সশস্ত্র বাহিনীর সর্বাধিনায়কের দপ্তর গতকাল সোমবার তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠনের ঘোষণা দিয়ে জানায়, ওই কমিটি জাতিসংঘের স্বাধীন সত্যানুসন্ধানী দল, হিউম্যান রাইটস ওয়াচ, অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের বিভিন্ন প্রতিবেদনে উত্থাপিত অভিযোগগুলোর ব্যাপারে তদন্ত করবে।

কূটনৈতিক সূত্রগুলো মনে করছে, আন্তর্জাতিক চাপ এড়াতে মিয়ানমার সেনাবাহিনী আবারও লোক-দেখানো উদ্যোগ নিয়েছে। আগামী শুক্রবারের মধ্যেই জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদে মিয়ানমার পরিস্থিতি নিয়ে একটি প্রস্তাবে ভোটাভুটি হওয়ার কথা। ওই প্রস্তাবে মিয়ানমারে রোহিঙ্গা গণহত্যার বিচারের জন্য জাতিসংঘের কাঠামোকে দ্রুত কাজ শুরুর তাগিদ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে মিয়ানমার সশস্ত্র বাহিনীর সর্বাধিনায়কের ওয়েবসাইটে তদন্ত শুরুর ঘোষণা দিয়েই রোহিঙ্গাদের আবারও ‘বেঙ্গলি’ (তৎকালীন বেঙ্গল বা বাংলা থেকে আরাকানে যাওয়া ‘বাঙালি’ বোঝাতে) সন্ত্রাসী হিসেবে অভিহিত করেছে ইয়াঙ্গুন। মেজর জেনারেল মিয়াত কিয়াউর নেতৃত্বে গঠিত তদন্ত কমিটিতে সদস্য হিসেবে আছেন কর্নেল কিয়াও কিয়াও ও থান নিং।

বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করা হয়েছে, ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট আরসার নেতৃত্বে ছয় হাজার ২০০ থেকে ১০ হাজার ‘বেঙ্গলি’ উগ্রবাদী সন্ত্রাসী রাখাইনের ৩০টি পুলিশ চৌকিতে হামলা চালায়। ওই দিন ৩৮টি সংঘর্ষ হয়। বিজ্ঞপ্তিতে আরো দাবি করা হয়েছে, ওই দিন ১২ জন পুলিশ এবং ১৩০ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়।

২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে লেফটেন্যান্ট জেনারেল আয়ে উইনের নেতৃত্বে এর আগে গঠিত তদন্ত কমিটি ওই হামলা ঠেকাতে নিরাপত্তা বাহিনীর দুর্বলতার তথ্য পেয়েছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ রয়েছে।

এদিকে থাইল্যান্ডভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন ফোরটিফাই রাইটস রোহিঙ্গা নিপীড়নের অভিযোগ তদন্তে আন্তর্জাতিক ফৌজদারি আদালত (আইসিসি) ও জাতিসংঘের কাঠামোকে সহযোগিতা করতে মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

ফোরটিফাই রাইটসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ম্যাথু স্মিথ মিয়ানমারের নতুন তদন্ত কমিটিকে আন্তর্জাতিক বিচারের উদ্যোগ ঠেকাতে এবং আইনি শাসন নিয়ে বৈশ্বিক উদ্বেগ প্রশমনে আরেকটি দুর্বল চেষ্টা হিসেবে অভিহিত করেছে।

মন্তব্য