kalerkantho

সখীপুরে প্রেমিকের সামনে কিশোরীকে গণধর্ষণ

ভিডিও ধারণ, গ্রেপ্তার ১

সখীপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

১৮ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



টাঙ্গাইলের সখীপুরে প্রেমিককে গাছের সঙ্গে বেঁধে রেখে প্রেমিকাকে গণধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষণের পর প্রেমিক যুগলকে বিবস্ত্র করে মুঠোফোনে ভিডিও ধারণ করা হয়। এ ঘটনায় গতকাল রবিবার সকালে নির্যাতিত কিশোরীর বাবা পাঁচজনকে আসামি করে সখীপুর থানায় মামলা করেছেন। পুলিশ জালাল উদ্দিন (২৫) নামে এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে।

মামলার বিবরণ ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গত সোমবার বিকেলে ওই কিশোরী তার প্রেমিকের সঙ্গে উপজেলার বহেড়াতৈল ইউনিয়নের উলিয়াচালা খেলার মাঠের পাশে বসে গল্প করছিল। এ সময় ওই ইউনিয়নের দক্ষিণ ঘাটেশ্বরী গ্রামের সাদ্দাম হোসেন (২৭), আশরাফুল (২৬), জালাল উদ্দিন (২৫), নজরুল (৩০) ও আফাজ (২৩) মোটরসাইকেলে করে সেখানে যায়। তারা ওই প্রেমিক যুগলের হাত-মুখ বেঁধে পাশের একটি বনে নিয়ে যায়। সেখানে তাদের কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করা হয়। টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে প্রেমিককে তারা গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখে। এ সময় তারা ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে এবং এর ভিডিও ধারণ করে। এরপর প্রেমিক যুগলকে বিবস্ত্র করে তাদের নানা আপত্তিকর দৃশ্যও মুঠোফোনে ধারণ করে তারা। বিকেল ৪টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত চলে তাদের ওপর এ পাশবিক নির্যাতন। রাত ৯টার দিকে ঘটনা কাউকে বললে অশ্লীল ভিডিও ও ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরী বলে, ‘আমি বন্ধুকে নিয়ে আলাপ করছিলাম। হঠাৎ ওরা আমাদের কাছে এসে হুমকি-ধমকি দিতে থাকে। একপর্যায়ে জোরপূর্বক আমাদের তুলে নিয়ে যায়।’

স্থানীয় ইউপি সদস্য হিরো তালুকদার বলেন, ঘটনাটি দুঃখজনক ও নিন্দনীয়। এর সঙ্গে জড়িতরা এলাকার চিহ্নিত বখাটে। এ অমানসিক ঘটনায় জড়িতদের বিচার দাবি করেন তিনি।

সখীপুর থানার ওসি (তদন্ত) ও মামলার আইও লুত্ফুল কবির বলেন, ‘ঘটনার সঙ্গে জড়িত একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার কাছ থেকে ভিডিও ধারণ করা মুঠোফোনটিও উদ্ধার করা হয়েছে। অন্যদেরও গ্রেপ্তার করতে পুলিশ কাজ করছে।’

মন্তব্য