kalerkantho

ঢাকাগামী লঞ্চে ছাত্রলীগের ভাঙচুর

পটুয়াখালী প্রতিনিধি   

১৮ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লঞ্চে কেবিন না পেয়ে পটুয়াখালী থেকে ঢাকাগামী ডাবল ডেকার যাত্রীবাহী দুই লঞ্চ এমভি সুন্দরবন-৯ ও এমভি জামাল-৫-এ ভাঙচুর, লুটপাট ও মারধরের ঘটনা ঘটিয়েছে জেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। গতকাল দুপুর ১টায় পটুয়াখালী লঞ্চঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, দুপুরে লঞ্চঘাটে ঢাকাগামী লঞ্চের কেবিনের জন্য আসেন পটুয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাসান সিকদার। তখন লঞ্চের সব কেবিন বুকিং থাকায় কর্তৃপক্ষ কেবিন দিতে পারেনি। পরে ঘাটে নোঙর করা ডাবল ডেকার লঞ্চ এমভি সুন্দরবন-৯ ও এমভি জামাল-৫-এ উঠে ভাঙচুর করে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও তাঁর সাঙ্গোপাঙ্গরা। সুন্দরবন লঞ্চের ভিআইপি কেবিনসহ প্রায় ১০টি কেবিনে ভাঙচুর চালানো হয়।

এ বিষয়ে এমভি সুন্দরবন-৯ লঞ্চের সুপারভাইজার আব্দুল রাজ্জাক বলেন, ‘কেবিন দিতে না পারায় লঞ্চে উঠে ব্যাপক ভাঙচুর চালায় ছাত্রলীগের কর্মীরা। তারা নগদ ক্যাশও লুটপাট করে নিয়ে যায়। বিষয়টি মালিকপক্ষকে জানানো হয়েছে। এ ব্যাপারে আমরা মামলা করব।’

অভিযোগ অস্বীকার করে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাসান সিকদার বলেন, ‘আমি লঞ্চঘাটে কেবিনের জন্য গিয়েছিলাম। সেখান থেকে চলে আসার পর খবর পেলাম কে বা কারা লঞ্চে ভাঙচুর করেছে। বিষয়টি দুঃখজনক।’

মন্তব্য