kalerkantho

মোটরসাইকেল কেনাই কাল হলো সবুজের

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দামি মোটরসাইকেল কিনে টাকা চুরির অভিযোগে ফেঁসে গেলেন সুপ্রিম কোর্টের কর্মচারী (এমএলএসএস) সবুজ মিয়া। এই মোটরসাইকেল দেখেই তাঁকে সন্দেহ করেন সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি তারিক উল হাকিম।

সবুজের বিরুদ্ধে মামলাও হয়েছে। তিনি এখন কারাবন্দি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসবাদে তিনি স্বীকার করেছেন, বিভিন্ন সময় তিনি ওই বিচারপতির বাসা থেকে যে টাকা চুরি করেছেন, সেই টাকা দিয়েই মোটরসাইকেলটি কিনেছেন।

সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের করা এক অভিযোগে বলা হয়েছে, সবুজ ওই বিচারপতির বাসা থেকে গত এক বছরে প্রায় ৯ লাখ টাকা চুরি করেন। তাঁর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলাসহ বিভাগীয় মামলা হয়েছে।

বিচারপতি তারিক উল হাকিমের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা তানভীর আহমেদ তুহিন সবুজকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘বিচারপতি মহোদয় সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দিয়েছেন বলে জানি।’

সবুজের বিরুদ্ধে রেজিস্ট্রার জেনারেল ড. জাকির হোসেনের লেখা অভিযোগনামা থেকে পাওয়া তথ্যে জানা যায়, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি বিচারপতি মহোদয়ের বাসা থেকে প্রায় চার লাখ টাকা চুরি হয়। এরপর গত ৫ মার্চ চুরি হয় পাঁচ লাখ টাকার মতো।

এ অবস্থায় গত ৭ মার্চ হোন্ডা হরনেট মডেলের একটি নতুন মোটরসাইকেল (প্রায় দুই লাখ টাকা মূল্যের) নিয়ে বিচারপতির বাসার সামনে হাজির হন সবুজ। এই মোটরসাইকেল দেখার পর ওই বিচারপতি বিষয়টি সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনকে জানান। সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করে। এরপর সবুজকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

মন্তব্য