kalerkantho

আক্কেলপুরে বিধবাকে পিটিয়ে চুল কর্তন

আহত ওই নারীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে

আক্কেলপুর (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি   

১৮ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে ছাগল চুরির ঘটনা নিয়ে এক বিধবাকে বাড়িতে ডেকে এনে পিটিয়ে চুল কেটে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত শনিবার রাতে উপজেলার তিলকপুর নতুন বাজার এলাকায়। ঘটনার পর আহত ওই নারীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় গতকাল রবিবার ওই নারী বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, তিলকপুর নতুন বাজার এলাকার তাজ বেগম ও নুরুন্নবীর দুটি ছাগল চুরি হয়। বগুড়ার আদমদীঘির হাটে ছাগল দুটি বিক্রি করতে নিয়ে যান ওই নারী। ছাগলের দাম বেশি চাওয়ায় ব্যাপারীদের সন্দেহ হয়। পরে তারা হাট ইজারাদারের লোকজনকে ঘটনাটি জানায়। হাট ইজারাদারের লোকজন দুটি ছাগলসহ ওই নারীকে আদমদীঘি থানা পুলিশের হাতে তুলে দেয়। ঘটনা জানার পর ছাগলের মালিক নুরুন্নবী স্থানীয় ইউপি সদস্য পিন্টুকে সঙ্গে নিয়ে আদমদীঘি থানায় গিয়ে ছাগলসহ ওই নারীকে ছাড়িয়ে আনেন। ওই নারী তাদের বলে, তিলকপুর নতুন বাজারের মৃত আব্বাস আলীর ছেলে সবুজ হোসেন ওই ছাগল বিক্রির জন্য তাঁকে হাটে পাঠিয়েছিল। পরে ওই দিন রাতেই ওই নারীকে সবুজ তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে আটকে রেখে শরীরের কাপড় খুলে বেধড়ক মারধর করে। একপর্যায়ে চুলও কেটে দেওয়া হয়। খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে ওই নারীকে বের করে দিয়ে দরজা আটকে দেওয়া হয়। পরে স্থানীয়রা তাঁকে উদ্ধার করে আক্কেলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

গতকাল রবিবার বিকেলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গিয়ে দেখা গেছে, নারী ওয়ার্ডের ২৩ নম্বর শয্যায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন ওই বিধবা। তাঁর মাথার চুল কাটা। মাথা, ডান হাতের দুই আঙুলে বান্ডেজ। ওই নারী বলেন, ‘সবুজ আমাকে দুটি ছাগল দিয়ে হাটে পাঠিয়েছে। আমি ছাগল চুরি করিনি। আদমদীঘি থানা থেকে ছাড়িয়ে আনার পর রাতেই সবুজ তাদের বাড়িতে আমাকে নিয়ে যায়। সেখানে আমাকে আটকে রেখে সবুজ, তার বোন, ভাইসহ আরো তিন-চারজন মিলে লোহার রড়, হাঁসুয়া দিয়ে মারধর করে। সবুজের বোন সুমি আমার চুল কেটে দিয়েছে। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।’

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আসাফুদৌল্লা বলেন, ‘ওই নারীর মাথার দুই জায়গা ও হাতের আঙুল কাটা রয়েছে।’

ইউপি সদস্য পিন্টু বলেন, ‘রাতে ওই মহিলাকে সবুজের বাড়িতে ডেকে নিয়ে বেধড়ক পেটানো হয়েছে। তাঁর চুলও কেটে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় উত্তেজনা দেখা দিলে পুলিশে খবর দেওয়া হয়।’

আক্কেলপুর থানার ওসি কিরণ কুমার রায় বলেন, ছাগল চুরির ঘটনা নিয়ে ওই নারীকে নির্যাতনের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য