kalerkantho

সড়কে ঝরল পাঁচ প্রাণ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



যশোর থেকে পিকআপে মুরগি নিয়ে ঢাকায় বিক্রির জন্য আসছিলেন ব্যবসায়ী জিল্লুর রহমান। পথে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলার নয়াডিঙ্গী এলাকায় পিকআপটির সঙ্গে মালবাহী একটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে প্রাণ যায় জিল্লুর রহমান, পিকআপের চালক ও তাঁর সহকারীর। গতকাল শুক্রবার সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ছাড়া বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ও গতকাল সড়ক দুর্ঘটনায় নাটোর ও ময়মনসিংহের তারাকান্দায় দুজন নিহত হয়েছে। কালের কণ্ঠ’র নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

মানিকগঞ্জ : নিহত অন্য দুজন হলেন পিকআপের চালক মনসুর আলী (২৫) ও সহকারী হাবিবুর রহমান (২০)। তাঁদের বাড়ি যশোরের কেশবপুর উপজেলার ভাণ্ডারখোলা গ্রামে। নিহত জিল্লুর রহমানের (২৭) বাড়ি একই উপজেলার তেঘরী গ্রামে।

গোলড়া হাইওয়ে থানার উপপরিদর্শক এ কে এম মামুন বলেন, এ ঘটনায় সাটুরিয়া থানায় মামলা হয়েছে। লাশ তিনটি মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ট্রাকটি জব্দ করা গেলেও চালক ও সহকারী পালিয়েছে। দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়া পিকআপটি থানায় রাখা হয়েছে।

নাটোর : সদর উপজেলার হালসা মাটিকোপা এলাকায় গতকাল সকালে ইটভাটার ট্রলির নিচে চাপা পড়ে এমতাজুল (৩৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হন। এ ঘটনায় উত্তেজিত জনতা ট্রাক্টরচালিত তিনটি ট্রলি আগুনে পুড়িয়ে দেয়। অবৈধভাবে মাটি কেটে ট্রলিটিতে করে নেওয়া হচ্ছিল। নাটোর থানার ওসি কাজী জালাল উদ্দিন বলেন, পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয় ও লাশ উদ্ধার করে থানায় আনে।

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) : ঢাকা-হালুয়াঘাট মহাসড়কের তারাকান্দার ধলীবাজার এলাকায় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাস্তা পার হওয়ার সময় ট্রাকের ধাক্কায় নূপুর (১৫) নামের এক মাদরাসাছাত্রী নিহত হয়। সে ফুলপুর উপজেলার রূপসী ইউনিয়নের আশি পাঁচকাহনিয়া গ্রামের রুহুল আমিনের মেয়ে।

মুকসুদপুর (গোপালগঞ্জ) : উপজেলার দাশের হাটসংলগ্ন ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে বৃহস্পতিবার সকালে ট্রাকের ধাক্কায় দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী দুলাল ভৌমিক (৫৫) গুরুতর আহত হন। দুলাল তাঁর গাভি নিয়ে মহাসড়কের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় ঘটনাটি ঘটে। মুকসুদপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরা তাঁর মাথায় পাঁচটি সেলাই দেন। বুকের হাড় ভেঙে যাওয়ায় তাঁকে রাজধানীর একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

সাভার (ঢাকা) : বাইপাইল-আবদুল্লাহপুর মহাসড়কের আশুলিয়া বেড়িবাঁধ ব্রিজে গতকাল ভোরে একটি প্রাইভেট কার আগুন লেগে পুড়ে গেছে। তবে এতে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

ফায়ার সার্ভিস সূত্র ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট দ্রুত গিয়ে আধাঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। গাড়িটি (ঢাকা মেট্রো-১৩-৫১৪৪) আশুলিয়া থেকে উত্তরার দিকে যাচ্ছিল। ঘটনাস্থলে গাড়িটির চালক বা কোনো যাত্রীকে পাওয়া যায়নি।

উত্তরা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মো. সফিকুল ইসলাম বলেন, দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণে আনায় গাড়িতে থাকা গ্যাস সিলিন্ডারটি বিস্ফোরিত হয়নি।

আশুলিয়া থানার এএসআই সাইদুর রহমান বলেন, গাড়িটি র‌্যাকার দিয়ে থানায় আনা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, গাড়িটিতে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে আগুন লাগে। দুর্ঘটনার পর মহাসড়কটিতে প্রায় এক ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ ছিল।

মন্তব্য