kalerkantho

সংবাদ সম্মেলনে রিজভী

উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিলে সাংগঠনিক ব্যবস্থা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী বলেছেন, দলের প্রাথমিক সদস্য থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় পর্যায় পর্যন্ত কেউ আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গতকাল রবিবার বিকেলে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে দলের পক্ষে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান রিজভী। তিনি বলেন, ‘আমি বিএনপির সব পর্যায়ের নেতাকর্মীদের অবগতির জন্য জানাচ্ছি, উপজেলা নির্বাচনে দলের কোনো নেতাকর্মী অংশ নিতে পারবে না। কেউ দলের এ সিদ্ধান্তের বরখেলাপ করলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ সাংগঠনিক ব্যবস্থার অর্থ কী—প্রশ্ন করা হলে রিজভী বলেন, সব ধরনের শাস্তিমূলক ব্যবস্থা।

রিজভী আরো বলেন, ‘মিড নাইট নির্বাচনের প্রধান কারিগর প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা যে নজির সৃষ্টি করেছেন, তার পরও অন্যান্য রাজনৈতিক দল আগামী নির্বাচনগুলোতে অংশ নেবে, তা তিনি কী করে আশা করেন। সিইসি ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনের পরে বলেন, নির্বাচন স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ ছিল, উপজেলা নির্বাচনও স্বচ্ছ, নিরপেক্ষ হবে। তাতে বোঝা যাচ্ছে উপজেলা নির্বাচনের ভবিষ্যৎ। এ নির্বাচনও যে আগের দিন রাতেই অনুষ্ঠিত হবে তাতে সন্দেহ নেই।’ তিনি বলেন, ‘ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচন। কোথাও সাড়া-শব্দ নেই। মানুষ নীরব ও উৎসাহহীন। সিইসি গণতন্ত্রের কবর দিয়েছেন ২৯ ডিসেম্বরের রাতেই। তাই আইন-কানুন, নিয়ম-নীতি, লজ্জার ধার ধারছেন না তিনি।’

সংবাদ সম্মেলনে দলের নেতা আবদুস সালাম, খায়রুল কবীর খোকন, শিরিন সুলতানা, মীর নেওয়াজ আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য