kalerkantho

সাভারে পোশাক শ্রমিককে দল বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ

হবিগঞ্জে শিশু ‘ধর্ষণ’

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার ও হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাভারে এক পোশাক শ্রমিক (১৭) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে সাভারের হেমায়েতপুরের নতুনপাড়া বালুর মাঠ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গতকাল রবিবার সকালে ওই কিশোরীর ভাই সাভার মডেল থানায় ধর্ষণের মামলা করেছেন।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত চার মাস ধরে ওই কিশোরী হেমায়েতপুরে আমান গার্মেন্টে নিটিং অপারেটর হিসেবে চাকরি করে আসছিলেন। একই গার্মেন্টে রাকিব (২২) নামের এক কর্মীর সঙ্গে ওই কিশোরীর কথিত প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ৮টার দিকে হেমায়েতপুর বালুর মাঠে রাকিবের সঙ্গে দেখা করতে যায় ওই কিশোরী। এ সময় সেখানে উপস্থিত সুলতানসহ (২২) অজ্ঞাতপরিচয় আরো দুই-তিনজন রাকিবকে মারধর করে তাড়িয়ে দেয়। এরপর তারা ওই কিশোরীর ওপর নির্যাতন চালায়। এ সময় ভুক্তভোগীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে ধর্ষণকারীরা পালিয়ে যায়। কথিত প্রেমিক রাকিব পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটিয়েছে অভিযোগ করে তাকে এই মামলার প্রধান আসামি করা হয়েছে।

সাভার মডেল থানার ট্যানারি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ গোলাম নবী বলেন, এ ঘটনায় সাভার মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের হয়েছে। ভুক্তভোগীকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

হবিগঞ্জে শিশু ধর্ষণ : এদিকে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার সুলতান মাহমুদপুর গ্রামের যুবক বাচ্চু মিয়ার (৩০) বিরুদ্ধে পিতৃহীন এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শনিবার রাতে ভুক্তভোগীকে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাচ্চু মিয়া ঘাস কাটতে নিয়মিতভাবে রিচি ইউনিয়ন অফিসের পাশ দিয়ে হাওরে যান। গত বুধবার রিচি গ্রামের এক শিশুকে ধর্ষণ করেন তিনি। এ সময় ওই শিশুর মা বাড়িতে ছিলেন না। পরে ভুক্তভোগী তার মাকে জানায়। এরপর এ নিয়ে গত শনিবার সালিস বৈঠক ডাকা হয়। তবে বাচ্চু উপস্থিত না হলে ওই রাতেই শিশুকে হাসপাতালে ভর্তি করেন তার চাচা।

মন্তব্য