kalerkantho


কলেজ শিক্ষককে পুলিশের লাঞ্ছনা প্রতিবাদে থানা ঘেরাও ভাঙচুর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ   

২৪ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



ময়মনসিংহ শহরের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম কলেজের এক শিক্ষককে পুলিশের লাঞ্ছনা ও আটকে রাখার ঘটনায় কোতোয়ালি থানা ঘেরাও এবং ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল বুধবার সকালের এ ঘটনায় পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। অন্যদিকে পুলিশের লাঠিপেটা ও রাবার বুলেটে ১০ শিক্ষার্থী আহত হয়েছে।

অভিযোগ উঠেছে, পুলিশের বেপরোয়া লাঠিচার্জ ও রাবার বুলেটে আহত হয়ে শিক্ষার্থীরা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে গেলে পুলিশ সেখানেও শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালিয়েছে। খবর পেয়ে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার কলেজ ও হাসপাতাল পরিদর্শন করে ঘটনা খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন।

শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম কলেজের শিক্ষকরা জানান, গতকাল সকাল পৌনে ১০টার দিকে প্রাইভেট কার নিয়ে কলেজে যাচ্ছিলেন শিক্ষক শেখ শরীফুল আলম। কলেজের কিছুটা আগে জিলা স্কুল মোড়ে ব্যাটারিচালিত একটি অটোরিকশার সঙ্গে তাঁর গাড়ি আটকে যায়। এ নিয়ে বাইকচালক ও শরীফুল আলমের মধ্যে বিতণ্ডা হয়। এ সময় শিক্ষক শরীফুল বাইকটির চাবি নিয়ে নেন। এদিকে ওই সময় সেখানে যানজটের সৃষ্টি হলে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের সঙ্গে শিক্ষক শরীফুলের কথা-কাটাকাটি হয়। তখন ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে শিক্ষক শরীফুলকে পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে আটকে রাখে। এ সময় পুলিশ তাঁকে মারধরও করে। শিক্ষক শেখ শরীফুল আলম বলেন, পুলিশ তাঁকে মারধর করেছে।

এদিকে এ খবর কলেজে পৌঁছলে শিক্ষার্থীরা পুলিশের বিচার দাবিতে সোচ্চার হয়ে ওঠে। একপর্যায়ে তারা মিছিল করে গিয়ে কোতোয়ালি থানা ঘেরাও করে। এ সময় ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটে। পুলিশের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয় এ সময় শিক্ষার্থীদের হাতে পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হন। এ সময় পুলিশের হাতে প্রায় ১০ শিক্ষার্থীও আহত হয়।



মন্তব্য