kalerkantho

লালমনিরহাটে ফখরুল

পুনরায় নির্বাচন করে জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে

লালমনিরহাট প্রতিনিধি   

২২ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন কোনো নির্বাচন হয়নি। মানুষ এই নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করেছে। বিএনপি প্রত্যাখ্যান করেছে, ঐক্যফ্রন্ট প্রত্যাখ্যান করেছে। তাই ওই নির্বাচনে কে জিতেছে আর কে হেরেছে সেটা মুখ্য বিষয় নয়। জনগণের কাছে মুখ্য বিষয় হচ্ছে তারা তাদের ভোটের অধিকার হারিয়েছে। তাদের ভোটের অধিকার ডাকাতি করা হয়েছে।

গতকাল সোমবার লালমনিরহাট সদর উপজেলার রাজপুর ইউনিয়নের পূর্ব খলাইঘাটে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন। গত ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন চলাকালে ওই এলাকায় সংঘর্ষে নিহত তোজাম্মেল হকের কবর জিয়ারত ও তাঁর পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাতে এসে তিনি এসব কথা বলেন। তাঁর সঙ্গে ছিলেন জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা নির্বাচনের দিন তোজাম্মেল হককে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। আমরা এই ঘটনার নিন্দা জানাই। আমরা আগেই বলেছি যে এই নির্বাচন বাতিল করে পুনরায় নিরপেক্ষ নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন করে জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।’

মির্জা ফখরুলসহ ঐক্যফ্রন্ট নেতারা এর আগে নিহতের কবর জিয়ারত করেন এবং তাঁর পরিবারকে সমবেদনা জানান। পরিবারের সদস্যদের হাতে অর্থ সহায়তাও তুলে দেওয়া হয়। এ সময় নির্বাচনী ওই সংঘর্ষে আহত পূর্ব খলাইঘাট এলাকার আটজনকেও অর্থ সহায়তা দেওয়া হয়। পরে পূর্ব খলাইঘাটে আয়োজিত প্রতিবাদসভায় বক্তব্য দেন মির্জা ফখরুল, আ স ম রব, কাদের সিদ্দিকী, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, লালমনিরহাট জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক উপমন্ত্রী আসাদুল হাবিব দুলু প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, একাদশ সংসদ নির্বাচনের দিন সকালে ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার সময় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে সংঘর্ষে গুরুতর আহত হন তোজাম্মেল হক। ওই দিন দুপুরে তিনি রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা যান। এ ঘটনায় ১ জানুয়ারি লালমনিরহাট সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৯ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করেন নিহতের ছেলে মো. মোস্তফা। পরে আদালতের নির্দেশে সদর থানা গত ৯ জানুয়ারি মামলাটি নথিভুক্ত করে।

 

মন্তব্য