kalerkantho


রিজভী বললেন

দেশব্যাপী সহিংসতার জন্য ইসি দায়ী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী বলেছেন, দেশব্যাপী সহিংসতা, রক্তপাত ও পুলিশি আক্রমণের বিষয়ে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দিলেও কোনো ফল মেলেনি। এসব ঘটনার জন্য সরাসরি নির্বাচন কমিশনই দায়ী।

গতকাল শনিবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এ কথা বলেন।

রিজভী আরো বলেন, নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালানোর সময় সারা দেশে ধানের শীষের ১৫০ জন প্রার্থীর ওপর আওয়ামী লীগের লোকজন এবং আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী হামলা করেছে। এর মধ্যে কুমিল্লা-৩, নেত্রকোনা-২, নোয়াখালী-৪, ময়মনসিংহ-১১, যশোর-৬, ফেনী-২, কুমিল্লা-৮, ঢাকা-২, চাঁদপুর-১, নোয়াখালী-২, নোয়াখালী-৪, নোয়াখালী-৬, পটুয়াখালী-১, পটুয়াখালী-৪, বাগেরহাট-১, বাগেরহাট-২, নরসিংদী-৪, বরিশাল-১, ঝালকাঠি-২, রংপুর-৬, ঝিনাইদহ-২, মানিকগঞ্জ-২, রাজবাড়ী-২, মাদারীপুর-২, চট্টগ্রাম-৩, চট্টগ্রাম-৪, চট্টগ্রাম-৯, চট্টগ্রাম-১০, চট্টগ্রাম-১৫, কুষ্টিয়া-১, নড়াইল-১-সহ বেশ কয়েকটি আসনে প্রার্থী ও সমর্থকদের ওপর হামলার কথা উল্লেখ করে এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানান রিজভী।

রিজভী আরো বলেন, দুজন প্রার্থীকে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। খালেদা জিয়াসহ বেশ কয়েকজন প্রার্থীকে আইনি জটিলতা দেখিয়ে প্রার্থিতা অনিশ্চিত করে রাখা হয়েছে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, “গত শুক্রবার ড. কামাল হোসেনের নামে ষড়যন্ত্রমূলক মামলা করা হয়েছে। এই মামলার মাধ্যমে সরকার যে বার্তা দিল, তা নিম্ন রুচির। প্রধানমন্ত্রীকে বলতে চাই, এইচ টি ইমাম যখন সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ধমকিয়ে বলেন, ‘তুমি কি বিএনপি যে বিএনপির মতো প্রশ্ন করো? তুমি কি মওদুদ?’ কই আপনি তো এ বিষয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া দেখাননি!”



মন্তব্য