kalerkantho


বগুড়ায় মির্জা ফখরুল

ইসি পক্ষপাতদুষ্ট আমরা খানাখন্দে নির্বাচন করছি

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া   

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বিএনপি মহাসচিব ও বগুড়া সদর আসনের সংসদ সদস্যপ্রার্থী মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সেনাবাহিনীকে ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা দিয়ে নির্বাচনী দায়িত্বে মোতায়েনের দাবি পুনর্ব্যক্ত করেছেন। তিনি বলেছেন, নির্বাচন কমিশন সরকারের নির্দেশনা ছাড়া কোনো কাজ করতে পারছে না। তারা ঠুঁটো জগন্নাথ। ইসি সব দলের জন্য নির্বাচনী সমতল ভূমি তৈরি করতে পারেনি অভিযোগ করে তিনি আরো বলেন, ‘দেশে সমতল ভূমি নেই, সম্পূর্ণ খানাখন্দে ভরা। আমরা সেই খানাখন্দের মধ্যে নির্বাচনে আছি। তাই সুষ্ঠু, অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য উপযোগী পরিবেশ তৈরি করতে হবে।’

শনিবার বগুড়া শহরের পৌর পার্কের উডবার্ন মিলনায়তনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২৩ দলীয় জোট মনোনীত জেলার সাত আসনের সংসদ সদস্যপ্রার্থীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব এসব কথা বলেন। উপস্থিত ছিলেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও বগুড়া পৌর মেয়র এ কে এম মাহবুবর রহমান, জেলা বিএনপির সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন, বগুড়া-১ আসনের প্রার্থী কাজী রফিকুল ইসলাম, বগুড়া-৩ আসনের আব্দুল মহিত তালুকদার, বগুড়া-৪ আসনের আলহাজ মোশারফ হোসেন, বগুড়া-৫ আসনের গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ, বগুড়া-৭ আসনের মোর্শেদ মিলটন। বগুড়া-২ আসনের প্রার্থী নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না ঢাকায় অবস্থানের কারণে অনুপস্থিত ছিলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, সারা দেশের মতো বগুড়ায় ধানের শীষের গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। ধানের শীষের জন্য মানুষ রাস্তায় নেমে এসেছে। গণতন্ত্রের জন্য বগুড়ার মানুষ একত্রিত হয়েছে। তাই যতই ষড়যন্ত্র করা হোক না কেন, জনগণ রুখে দাঁড়ালে কোনো অপশক্তি জিততে পারবে না। পরাজয়ের ভয়ে সরকার জনগণকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ভোটকেন্দ্রে যেতে বাধা দেওয়ার অপচেষ্টা করছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, জনগণ নিজের ভোট দিতে পারলে গণতন্ত্রের বিজয় হবেই।

মির্জা ফখরুল বলেন, ১০ বছর পর দেশে একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হতে যাচ্ছে। কিন্তু এই নির্বাচন নিয়ে অনেক প্রশ্ন রয়েছে। সর্বশেষ সরকারের সঙ্গে সংলাপে গ্রেপ্তার বন্ধ ও প্রশাসন নিরপেক্ষ থাকার যে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল, তা রক্ষা করা হয়নি।



মন্তব্য