kalerkantho


দুর্নীতিবাজদের বয়কট করার আহ্বান প্রধান বিচারপতির

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



দুর্নীতিকে ‘না’ বলা এবং দুর্নীতিবাজদের সামাজিকভাবে বয়কট করে দেশকে দুর্নীতিমুক্ত করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। গতকাল রবিবার আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা অডিটরিয়ামে ‘শিক্ষার্থী ও সততা সংঘের সমাবেশ’ শীর্ষক আলোচনাসভায় প্রধান বিচারপতি এই আহ্বান জানান।

দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে হতাশার অন্ধকার ঠেলে উজ্জ্বল আলোয় প্রিয় স্বদেশকে এগিয়ে নেওয়ার অঙ্গীকার করার আহ্বান জানিয়ে প্রধান বিচারপতি বলেন, “দুর্নীতিকে ‘না’ বলার প্রত্যয়দীপ্ত অঙ্গীকার নিয়ে সর্বাত্মক নৈতিকতাচর্চার সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলি। দুর্নীতি দমনের জন্য সামাজিক আন্দোলনের বিকল্প নেই। এ জন্য প্রয়োজন গণসচেতনতা, দেশপ্রেম এবং তারুণ্যের অঙ্গীকার। দেশের যুবসমাজ অসততা, অন্যায় ও দুর্নীতির বিরোধিতা শুরু করলেই কেউ কোনো অনিয়ম বা দুর্নীতি করার সাহস পাবে না।”

প্রধান বিচারপতি বলেন, “সবাই দুর্নীতিকে ‘না’ বলে এবং দুর্নীতিবাজদের সামাজিকভাবে বয়কটের মাধ্যমে এ দেশকে একদিন দুর্নীতিমুক্ত করবই—এটাই হোক আজকের সমাবেশে আমাদের অঙ্গীকার।”

দুদকের কারণে ক্ষমতাবানরা এখন শঙ্কিত হয়ে পড়ে জানিয়ে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘দুর্নীতি আমাদের একটি জাতীয় ব্যাধি। এটি সমাজে অর্থনৈতিক বৈষম্য সৃষ্টি করে ও সুষম রাষ্ট্রীয় উন্নয়ন ব্যাহত করে। জাতীয় এই সমস্যা প্রতিরোধ করার লক্ষ্যে দুদককে একটি বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলা হয়েছে। এ প্রতিষ্ঠান সৃষ্টির ফলে ক্ষমতাবান দুর্নীতিবাজরা শঙ্কিত হয়ে পড়ে।’

দুর্নীতির কারণেই মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্ন ও চেতনার অবমাননা করা হচ্ছে জানিয়ে প্রধান বিচারপতি আরো বলেন, ‘দেশপ্রেম, আদর্শ ও নৈতিক মূল্যবোধের ভিত্তিতে দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান গ্রহণ করতে হবে। আমাদের পূর্বপুুরুষরা অনেক ত্যাগ ও কষ্টের বিনিময়ে আমাদেরকে এই স্বাধীন বাংলাদেশ উপহার দিয়েছেন। কিন্তু আজ এই দুর্নীতি সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে প্রবেশ করে মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্ন ও চেতনাকে অবমাননা করছে।’

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে প্রধান বিচারপতি বলেন, প্রাজ্ঞ প্রবীণরা দেশ পরিচালনার দায়িত্ব পালন করেন। তাঁদের অভিজ্ঞতা, সততা, দক্ষতা ও ন্যায়নিষ্ঠার ওপর অনেক কিছু নির্ভর করে। কিন্তু জাতির ভবিষ্যৎ গতিপথ নির্ভর করে দেশের তরুণ প্রজন্মের ওপর। বিশ্বব্যাপী পরিবর্তনের যে জোয়ার আজ সৃষ্টি হয়েছে, তার মূলেও রয়েছে তরুণ শিক্ষার্থী। ছাত্রসমাজ আগামী দিনে যেমন বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেবে, তেমনি আজকের বাংলাদেশের দুর্নীতির বিরুদ্ধে এবং সুশাসন ও মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সোচ্চার ভূমিকা পালন করতে হবে।’

সভাপতির বক্তব্যে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেন, ‘একসাথে একযোগে সকলের সমন্বিত প্রচেষ্টায় দুর্নীতির বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন সৃষ্টি করে জাতিকে দুর্নীতির করাল গ্রাস থেকে মুক্ত করতে চাই।’

আলোচনাসভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দুদক কমিশনার ড. মো. মোজাম্মেল হক খান, এ এফ এম আমিনুল ইসলাম, সচিব ড. মো. শামসুল আরেফিন প্রমুখ।



মন্তব্য