kalerkantho


খালেদার বিরুদ্ধে নাইকো মামলার শুনানি ৩ জানুয়ারি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে নাইকো দুর্নীতি মামলায় কানাডার পুলিশ ও যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার (এফবিআই) তদন্ত প্রতিবেদন গ্রহণসংক্রান্ত প্রতিবেদন শুনানির তারিখ ৩ জানুয়ারি ধার্য করা হয়েছে। গতকাল রবিবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৯-এর বিচারক শেখ হাফিজুর রহমান এই তারিখ নির্ধারণ করেন।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আবেদনের পর এফবিআইয়ের প্রতিবেদন শুনানির তারিখ ছিল গতকাল রবিবার। এ ছাড়া কানাডার পুলিশ ও এফবিআইয়ের কয়েকজন কর্মকর্তাকে সাক্ষী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করার আবেদন জানিয়েছিল অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়।

দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল শুনানিতে আদালতকে বলেন, এ মামলার বিচার দেশে ও বিদেশে হচ্ছে। বিদেশিদের করা তদন্তকে সাক্ষ্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য আবেদন করা হয়েছে। এ সময় খালেদা জিয়ার আইনজীবী আবদুর রেজ্জাক খান ও মাসুদ আহমেদ তালুকদার শুনানির জন্য তারিখ পেছানোর আবেদন করেন। তাঁরা আদালতকে বলেন, মামলাটি গুরুত্বপূর্ণ। প্রতিবেদন গ্রহণের বিষয়টিতে তাঁরা আপত্তি জানাবেন। সব আসামির উপস্থিতিতে মামলাটি শুনানি করার সুযোগ দেওয়া হোক। দুই পক্ষের শুনানি শেষে আদালত ৩ জানুয়ারি শুনানির দিন ধার্য করেন।

কানাডার প্রতিষ্ঠান নাইকোর কাছ থেকে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে ২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর তেজগাঁও থানায় মামালটি করে দুদক। পরের বছর খালেদা জিয়াসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে দুদক অভিযোগপত্র দেয়। মামলায় অভিযোগ করা হয়, ক্ষমতার অপব্যবহার করে তিনটি গ্যাসক্ষেত্র পরিত্যক্ত দেখিয়ে নাইকোর হাতে ‘তুলে দেওয়ার’ মাধ্যমে আসামিরা রাষ্ট্রের প্রায় ১৩ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকার ক্ষতি করেছেন। আসামিপক্ষ মামলার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করলে হাইকোর্ট ওই বছরের ৯ জুলাই এ মামলার কার্যক্রম স্থগিত করেন এবং মামলা কেন বাতিল করা হবে না তা জানাতে রুল জারি করেন। ২০১৫ সালের ১৮ জুন হাইকোর্ট রুল নিষ্পত্তি করেন। একই সঙ্গে খালেদা জিয়াকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন। পরে ওই বছরের ডিসেম্বরে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করলে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৯ তাঁকে জামিন দেন। গত ৮ নভেম্বর খালেদা জিয়াকে এই মামলায় হাজির করা হয়েছিল। তিনি অন্য দুটি দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে কারাগারে আছেন।



মন্তব্য